ছেলের প্রেমের খেসারত দিলেন রিকশাচালক বাবা, শেষ দেখা হলো না

ইমান২৪.কম: প্রভাবশালীর মেয়ের সাথে প্রণয়, শেষে পালিয়ে যায় সেই মেয়েকে। এদিকে ছেলের প্রেমের বলি হয়েছেন শেষ পর্যন্ত তার রিক্সাচালক বাবা। মেয়ের পরিবারের নির্যাতনের শিকার হয়ে শেষ পর্যন্ত মারা যান তিনি। ঘটনাটি গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের পূর্ব দামোদরপুর গ্রামের।

ছেলে মোজাম্মেল পালিয়ে যাওয়ার পর তাকে না পেয়ে দরিদ্র পিতা ছকু মিয়াকে আটকে রেখে মারধর করে মেয়ের পরিবার। শুধু তাই নয়, সালিশে ছকু মিয়াকে জরিমানা করা হয় ৫০ হাজার টাকা। মারধরের পর গুরুতর অসুস্থ ছকু মিয়া ছেলের ভালোবাসার খেসারত হিসেবে ওই ৫০ হাজার টাকা যোগাড় করতে ঢাকায় রিকশা চালানো শুরু করেন।

কিন্তু পরিশ্রমের বোঝা বইতে না পেরে শেষ পর্যন্ত হার্ট অ্যাটাক করে মারা যান তিনি। বর্তমানে প্রভাবশালী মেয়ের পরিবার ও গ্রাম্য মাতব্বরদের হুমকি-ধামকিতে এলাকা ছাড়া ছকু মিয়া দুই ছেলে-মেয়ে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এলাকাবাসী জানায়, রিকশা চালক ছকু মিয়ার ছেলে মোজাম্মেল হকের সঙ্গে কয়েক বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে প্রতিবেশী মন্টু মিয়ার মেয়ের। তারা দু’জন গত ১৫ মে পালিয়ে যায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রভাবশালী মন্টু ও তার ভাইয়েরা ছকু মিয়াকে ধরে নিয়ে রাতভর নির্যাতন করে।

জানা যায়, ঘটনার ৫ দিন পর গাজীপুরের মৌচাক থেকে ওই মেয়েকে উদ্ধার করা হয়। এরপরই মেয়ের প্রভাবশালী বাবা সালিশে অভিযুক্ত করে ছেলের বাবা ছকু মিয়াকে। সেখানে ছকু মিয়াকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে গ্রামছাড়া করা হয়। জরিমানার সেই টাকা সংগ্রহ করতে ঢাকায় গিয়ে গত ৩ জুন দুপুরে মারা যান ছকু মিয়া।

ফেসবুকে লাইক দিন