আমি জেল থেকে বলব খুনি মুদিকে আমরা চাইনা: মাওলানা রফিকুল ইসলাম

ইমান২৪.কম: নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে রাজধানীর মতিঝিলে বিক্ষোভকালে আটক হয়েছেন মাওলানা রফিকুল ইসলাম। যুব অধিকার পরিষদের ব্যানারে আয়োজিত ওই বিক্ষোভ থেকে বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) দুপুরে মাওলানা রফিকুলসহ ১১ জনকে আটক করে পুলিশ। আটকের কিছুক্ষণ পর তার ব্যাক্তিগত ফেসবুক আইডি থেকে স্টাটাস দেওয়া হয় “আমি জেল থেকে বলব খুনি মুদিকে আমরা চাইনা”।

এছাড়াও দেখা যায়, আটকের পর প্রিজনভ্যান থেকে নুরুজ্জামান নামের একজনের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে আসেন রফিকুল ইসলাম। ‘মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানী সমর্থক’ নামের একটি ফেসবুক গ্রুপে লাইভটি শেয়ার করা হয়। এই গ্রুপের সদস্য সংখ্যা ৫৬ হাজারের বেশি।

প্রিজনভ্যান থেকে মাত্র ২৯ সেকেন্ডের ওই লাইভে রফিকুল ইসলাম মাদানি বলেন, ‘আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমতুল্লাহ, সম্মানিত দেশবাসী আপনারা দেখতে পাচ্ছেন আমাদেরকে পুলিশ প্রিজনভ্যানে নিয়ে এসেছে। এই যে আমাদের আরও কিছু ভাই।

আমরা বলবো, আমরা আসলে দেশের বিরুদ্ধে না, ইসলামের বিরুদ্ধে না, আমাদেরকে পুলিশ ভাইয়েরা আহত করেছে, আঘাত করেছে, আমরা তাদেরকে বলবো আমাদেরকে আঘাত করা আর দেশকে আঘাত করা একই কথা। আমরা ইসলামবিরোধী না দেশবিরোধী না, আমরা মোদির বিরুদ্ধে।’

জানা গেছে, রফিকুল ইসলাম রাজধানীর জামিয়া মাদানীয়া বারিধারা মাদরাসায় লেখাপড়া করেছেন। শারীরিক আকৃতিতে ছোট হওয়ায় তাকে সবাই শিশুবক্তা বলেন এবং এ হিসেবেই পরিচিতি পান তিনি।

নেত্রকোনা জেলার পশ্চিম বিলাশপুর সাওতুল হেরা মাদরাসার পরিচালক রফিকুল ইসলাম ২০ দলীয় জোটভুক্ত জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ও রাবেতাতুল ওয়ায়েজিনের সঙ্গে যুক্ত আছেন বলেও জানা যায়।

আজকের ঘটনা প্রসঙ্গে পুলিশের মতিঝিল বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) মিন্টু কুমার জাগো নিউজকে বলেন, ‘আন্দোলনকারীরা মিছিল নিয়ে মতিঝিল শাপলাচত্বর এলে পুলিশ সদস্যরা তাদেরকে বাধা দেয়ার চেষ্টা করে। এসময় তারা পুলিশের ওপর আক্রমণ শুরু করে। আমাদের বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে, তার মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর। এখন পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো।’

ফেসবুকে লাইক দিন