রাজধানীতে স্বামী-স্ত্রী ও মেয়ের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় বড় মেয়ে আটক

ইমান২৪.কম: রাজধানীর কদমতলীর মুরাদপুর এলাকা থেকে স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (১৯ জুন) সকালে রাজধানীর কদমতলীর মুরাদপুর এলাকার একটি বাড়ি থেকে তিনজের লাশ উদ্ধার করা হয়। বিষাক্ত কিছু খাইয়ে তাদের হত্যার অভিযোগে আটক করা হয়েছে ওই দম্পতির বড় মেয়ে মেহেজাবিন মুনকে।

এ খবর নিশ্চিত করে কদমতলী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কবির হোসেন বলেন, শনিবার (১৯ জুন) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহতরা হলেন- মাসুদ রানা (৪৫), তার স্ত্রী জোসনা ওরফে মৌসুমী (৪০) এবং তাদের কন্যা সন্তান জান্নাত (১৮)।

পুলিশের দাবি, একই সময় মেহেজাবিন তার একমাত্র কন্যাসন্তান মারজান তাবাসসুম ও স্বামী শফিকুল ইসলামকে (৩০) বিষাক্ত কিছু খাওয়ালেও তাদের মৃত্যু হয়নি। অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ।

ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শফিকুল ইসলাম জানান, তাদের বাসা কদমতলীর বাগানবাড়ি এলাকায়। গতকাল শুক্রবার (১৮ জুন) রাত ৯টার দিকে সপরিবারে শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে যান। রাতে তার স্ত্রী অনেক কিছু খেতে দেন। এরপরের ঘটনা সম্পর্কে উনি আর কিছুই জানেন না।

এসআই কবির হোসেন বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে তিন জনকে মৃত এবং দুই জনকে অসুস্থ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি। নিহতদের ঢামেক মর্গে ও অসুস্থদের ঢামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। পুলিশের ধারণা, মারজানের মা মেহেজাবিন মুন রাতের কোনো একটি সময় সবাইকে হত্যার উদ্দেশ্যে বিষাক্ত কিছু খাওয়ান। তবে কী খেয়ে তারা অসুস্থ হয়েছেন, তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। নিহতদের ময়নাতদন্তের পর এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

ফেসবুকে লাইক দিন