ইসরায়েলি সেনাভর্তি বাসে হামাসের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

ইমান২৪.কম: ইসরায়েলের নেগেভ শহরের পশ্চিমে সাদিরুত এলাকায় রকেট হামলা চালানোর পর এবার ইসরায়েলের সেনাভর্তি একটি বাসে ট্যাংকবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেছে ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস।

বৃহস্পতিবার (২০ মে) হামাসের সামরিক শাখা ইজাদ্দিন আল-কাসসাম ব্রিগেড দাবি করেছে, সকালে সেনাভর্তি বাসে ট্যাংকবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলার পরপরই ওই স্থানে ব্যাপকভাবে মর্টারের গোলা নিক্ষেপ করা হয়।

তবে, ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী বলেছে, ওই বাস খালি ছিল এবং একজন সেনা সামান্য আহত হয়েছেন। ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলে রকেট হামলার সাইরেন বাজানোর পর সেনাভর্তি বাসে হামলার খবর এলো। এর আগে আট ঘণ্টা পর্যন্ত কোনো রকেট হামলা হয়নি।

এদিকে ইসরায়েলি ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, আগামী দু-একদিনের মধ্যে যুদ্ধবিরতি হতে পারে। হামাসের উপপ্রধান মুসা আবু মারজুকের বরাত দিয়ে বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে ফিলিস্তিনি সূত্রগুলোর বরাত দিয়ে পার্সটুডের প্রতিবেদনে বলা হয়, সাদিরুতে গতকাল হামাসের পাঁচটি রকেট আঘাত হানে। একই দিন দখলদার ইসরাইলের ছয়টি বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট হামলা চালিয়েছে প্রতিরোধ যোদ্ধারা।

দক্ষিণ গাজায় ইসরায়েলি হামলার জবাবে বিমানঘাঁটিগুলোকে টার্গেট করা হয়েছে বলে কাস্সাম ব্রিগেডের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। তারা আরও বলেছে- হাতসুর, হাতসারিম, নিফাতিম, তেল নুফ, বিলমাখিম ও র‍্যামন ঘাঁটিতে রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন