কোরআন আবমাননার প্রতিবাদে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল

ইমান২৪.কম: রাজধানীর কুড়িলে ভারতে কোরআন অবমাননার প্রতিবাদে বিশাল এক বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। আজ মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) প্রগতি সরণির বসুন্ধরা গেট থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায় গিয়ে শেষ হয়।

সূত্রে জানা যায়, বিশ্বরোড এলাকায় সেখানে তারা সংক্ষিপ্ত একটি সমাবেশ করেন। ভারতের সুপ্রিমকোর্টে পবিত্র কোরআন শরিফ সংশোধনের দাবিতে মামলা দায়েরকারী ওয়াসিম রিজভিকে গ্রেফতারের দাবি জানান তারা।

তার ছবি পদদলিত করার পাশাপাশি পোস্টারে আগুন দিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শনের ঘটনাও ঘটেছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মতো বাংলাদেশেও এ নিয়ে বিক্ষোভ চলছে।

ভারতের উত্তরপ্রদেশ শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান রিজভির অভিযোগ, কোরআন শরিফের ২৬টি আয়াতে নাকি সন্ত্রাসবাদকে উৎসাহিত করা হয়েছে। তাই সেগুলোকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি। ওয়াসিম রিজভির ওই আবেদন বাতিল করার দাবি জানিয়েছে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’বোর্ডের মহাসচিব মাওলানা মাহমুদ দরিয়াবাদী।

তিনি বলেন,‘বিগত ১৪০০ বছর ধরে পবিত্র কোরআন শরিফ অবিকৃত অবস্থায় রয়েছে। এই ঐশী গ্রন্থের একটি শব্দও পরিবর্তন করার অপচেষ্টা কেউ করেনি। কোরআন শরিফের কোনো আয়াতেই সহিংসতাকে সমর্থন করা হয়নি।

ভারতের শিয়া পার্সোনাল ল’বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে— কোরআনের প্রত্যেকটি আয়াত চিরন্তন সত্য। এর সত্যতা নিয়ে কোনো বিতর্ক চলতে পারে না। প্রখ্যাত শিয়া আলেম মাওলানা কালবে জাওয়াদ তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, ‘ভারতের আইনশৃঙ্খলা খারাপ করার জন্য এবং মুসলিমদের মনোযোগ অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্য ওই চেষ্টা নিন্দনীয়। ওয়াসিম রিজভির বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআইয়ের হাত থেকে রক্ষা পেতে তিনি ওই ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।

মাওলানা কালবে জাওয়াদ আরও বলেন, এ ধরনের ব্যক্তির ইসলাম ধর্মে কোনো স্থান নেই। কেননা শিয়া সম্প্রদায় পবিত্র কোরআনকে চিরন্তন ও শাশ্বত সত্য বলে মনে করেন। কেয়ামত পর্যন্ত তা অবিকৃত অবস্থায় থাকবে। কারও কোনো অধিকার নেই যে, এই পবিত্র ধর্মগ্রন্থে সামান্যতম কোনো পরিবর্তনের দাবি জানানোর।’

ফেসবুকে লাইক দিন