৫০ হাজার সৈন্যকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি নিতে বললেন এরদোগান

ইমান২৪.কম: সিরিয়ার ইদলিবে প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ ও রাশিয়ান বাহিনীর হামলা মোকাবেলায় ৫০ হাজার যোদ্ধাকে প্রস্তুত হতে বলেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যিপ এরদোগান।

সিরিয়ায় তুরস্ক সমর্থিত ফ্রি সিরিয়ান আর্মির (এফএসএ) এসব সদস্যকে সিরিয়ার আফরিন, আজাজ, জারাবুলাস, আল-বাব এবং আল-রিও শহরে প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, আস্তানা শান্তি আলোচনায় সিরিয়া প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ এবং আসাদ বিদ্রোহীরা একসঙ্গে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছিল। এছাড়া আস্তানা শান্তি আলোচনায় ইরান ও রাশিয়াও অংশ নিয়েছিল।

সিরিয়ার বিভিন্ন প্রদেশে আসাদের সরকারি বাহিনী কর্তৃক পরাজিত হয়ে দেশটির উত্তর-পশ্চিমের ইদলিব প্রদেশে জড়ো হয়েছে বিদ্রোহীরা।

সম্প্রতি ইরান ও রাশিয়ার সহযোগিতায় সেখানে চূড়ান্ত হামলার প্রস্তুতি নিয়েছে আসাদ বাহিনী।

সিরিয়ান সেনাবাহিনী ইদলিবে অভিযান চালানোর ঘোষণা দেয়ার পর তুরস্ক এর তীব্র বিরোধিতা করে আসছে। তিনি বলেছেন, তুরস্ক ইদলিবে কোনো যুদ্ধ চায় না।

এর আগে থেকে সিরিয়ার আফরিনে তুরস্কের অপারেশন অলিভ ব্রাঞ্চের সময়ে আফরিন ও ইফ্রেটিস নদীসংলঘ্ন এলাকায় তুরস্কের প্রায় ৩০ হাজার সৈন্য অবস্থান করছে।

এদিকে ইদলিব নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়ার পর তুরস্কের সিরিয়া সীমান্তে সামরিক যান, মিসাইল, আর্টিলারি মোতায়েন করেছে।

এছাড়া ইদলিবের উত্তর থেকে দক্ষিণ এলাকার মধ্যে প্রায় ১২টি পয়েন্টে তুরস্কের সেনাবাহিনী অবস্থান করছে। ইদলিব হামলা মোকাবেলার জন্য তারা সিমেন্টের বাঙ্কার তৈরি ও বুলেটপ্রুফ পোশাকে নিজেদের প্রস্তুত করছে।

প্রায় ৩০ লাখ সিরিয়ার নাগরিক প্রদেশটিতে বাস করেন। ধারণা করা হচ্ছে, ইদলিবে হামলা হলে জানমালের ব্যাপক ক্ষতি হবে।

এছাড়া ইদলিবে হামলা হলে তুরস্কের দিকে নতুন করে শরণার্থী স্রোত দেখা যেতে পারে বলে আশঙ্কায় আছে দেশটি। সূত্র: ইয়ানি শাফাক।

আরও পড়ুনঃ এরদোগানের বৈচিত্রময় জীবনের অজানা ১৫ তথ্য

মার্কিনবিরোধী জোট গঠনের জন্য বিশ্ববাসীকে তুরস্কের আহ্বান

বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তোলে এই দানব সরকারকে হঠানো হবে : মির্জা ফখরুল

ফেসবুকে লাইক দিন