‘হামাসকে মোকাবিলায় ইসরাইল পুরোপুরি অক্ষম’

ইমান২৪.কম: ইহুদিবাদী সন্ত্রসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের হত্যাযজ্ঞের বিরুদ্ধে দূ্র্বার প্রতিরোধ গড়ে ‍তুলেছিল হামাস। ইসরাইলের বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে হাজার হাজার রকেট ছুড়েছে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস। কিন্তু ‘আয়রন ডোম’ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ভেদ করে দখলদার ইসরাইলের অভ্যন্তরে হামলার ক্ষেত্রে সাফল্য দেখিয়েছে হামাসের রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র।

গাজার প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস ও ইসলামিক জিহাদের হামলায় যদি এ অবস্থা হয়, তবে লেবাননের হিজবুল্লাহর সঙ্গে যুদ্ধে জড়ালে ইসরাইলের পরিণতি কী হবে তা নিয়ে শঙ্কিত ইসরাইলের নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা। এরপর থেকে বিশ্লেষকরা ইসরাইলের নিরাপত্তার নানা ত্রুটি খুঁজে বের করছেন।

ইসরাইলের পররাষ্ট্র এবং জাতীয় নিরাপত্তাবিষয়ক বিশ্লেষক গিল মার্সিয়ানো। যিনি কাজ করছেন বার্লিনভিত্তিক থিংক ট্যাংক জার্মান ইনস্টিটিউট ফর ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড সিকিউরিটি অ্যাফেয়ার্স (এসডব্লিউপি)-এ। দখলদার ইসরাইলের ইংরেজি দৈনিক হারেৎজ পত্রিকায় এক কলামে তিনি লিখেছেন, ফিলিস্তিন ও লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসকে মোকাবিলায় ইসরাইল দুর্বল।

জাতীয় নিরাপত্তার ক্ষেত্রে গত কয়েক দশকে ‘ওয়ার বিইটু্ন দ্য ওয়ার্স’ নীতি ইহুদিবাদী ইসরাইলের অন্যতম রক্ষাকবচ উল্লেখ করে তিনি লিখেছেন, কূটনৈতিকভাবে সংকট সমাধানের চেয়ে সামরিক আগ্রাসন সুবিধাজনক বিকল্প হিসেবে স্থান করে নিয়েছে এ নীতি। কিন্তু এ নীতির অনুসরণ ইসরাইলের জন্য বাস্তব যুদ্ধের দুঃখ-কষ্টের মধ্যে টিকে থাকার অবস্থা খুবই সীমিত পর্যায়ে।

মার্সিয়ানো বলেন, ইসরাইল আধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত এবং তার ভাণ্ডারে গুরুত্বপূর্ণ অভিজ্ঞতা রয়েছে- এমনটিই বলা হয় সবসময়। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে প্রতিরোধ অক্ষের বিরুদ্ধে সংঘর্ষে ইসরাইল তার লক্ষ্য অর্জন করতে পারছে না।

ফেসবুকে লাইক দিন