হাজার হাজার মসজিদ গুঁড়িয়ে দিচ্ছে চীন!

ইমান২৪.কম: ৩ বছরের ব্যবধানে কয়েক হাজার মসজিদ ধ্বংস করে দিয়েছে চীনা কর্তৃপক্ষ। বিশেষত দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের জিনজিয়াং প্রদেশে প্রায় ১৬ হাজার মসজিদ ধ্বংস অথবা ক্ষতিগ্রস্ত করা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ান স্ট্রাটেজিক পলিসি ইনস্টিটিউট (এএসপিআই) নামের একটি থিংক ট্যাংক প্রতিষ্ঠান এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরেছে। এ নিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, জিনজিয়াংয়ের ওই এলাকার পরিসংখ্যানগত মডেলিংয়ের মাধ্যমে স্যাটেলাইটে প্রাপ্ত চিত্র বিশ্লেষণ করে শতাধিক পবিত্র স্থান ও হাজার হাজার মসজিদ ধ্বংসের প্রমাণ পেয়েছে এএসপিআই।

প্রতিবেদনে প্রায় ১৬ হাজার মসজিদ ধ্বংস অথবা ক্ষতিগ্রস্ত করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। যার মধ্যে গত ৩ বছরেই সবচেয়ে বেশিসংখ্যক মসজিদ ধ্বংস করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, এ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৮ হাজার মসজিদ পুরোপুরি গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। জিনজিয়াংয়ের রাজধানী উরুমকি ও কাশগর শহরের আশপাশে এ ধ্বংসযজ্ঞ বেশি চালানো হয়েছে।

যেসব মসজিদ ধ্বংসযজ্ঞ থেকে রক্ষা পেয়ে সেসবের মিনার ও গম্বুজ ভেঙে দেয়া হয়েছে। এত এত মসজিদ ধ্বংসের পরও এখনও জিনজিয়াংয়ে সাড়ে ১৫ হাজারের মতো মসজিদ অক্ষত কিংবা আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত অবস্থায় ঠিকে আছে। এএসপিআই বলছে, তাদের পরিসংখ্যান যদি সত্যি হয় তবে ১৯৯০ এর দশকে চীনে সাংস্কৃতিক বিপ্লবের পর মসজিদের সংখ্যা এবারই সবনিম্ন হবে।

জিনজিয়াংয়ে মসজিদ ছাড়াও অন্যান্য ইসলামি পবিত্র স্থাপনা- কবরস্থান, মাজার ও তীর্থযাত্রার পথের এক-তৃতীয়াংশই ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে। তবে মসজিদ ধ্বংস করা হলেও জিনজিয়াংয়ে এখনও খ্রিষ্টানদের গির্জা ও বৌদ্ধদের মন্দির অক্ষত অবস্থায় রয়েছে বলে জানিয়েছে এএসপিআই।

গেল সপ্তাহে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন জানিয়েছেন, জিনজিয়াংয়ে প্রায় ২৪ হাজার মসজিদ রয়েছে। সেখানকার জনসংখ্যার তুলনায় মসজিদের এই হার বিশ্বের অন্যান্য অনেক মুসলিম দেশের তুলনায়ও বেশি। হাজার হাজার মসজিদ গুঁড়িয়ে দেয়ার পরও চীন সরকার বলছে, জিনজিয়াংয়ের বাসিন্দারা শতভাগ ধর্মীয় স্বাধীনতা উপভোগ করছেন।

ফেসবুকে লাইক দিন