স্ত্রী থাকার পরেও ছাত্রীকে গোপনে বিয়ে, কলেজশিক্ষককে গণধোলাই

ইমান২৪.কম: রাজবাড়ীর পাংশায় স্ত্রী-সন্তান থাকার পরেও কলেজছাত্রীকে দ্বিতীয় বিয়ে করে গোপন রাখায় কাজী আব্দুল্লাহ ওরফে কাজী তারেক (৫২) নামের এক কলেজশিক্ষককে গণধোলাই দিয়েছে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। মঙ্গলবার (২০ জুলাই) বিষয়টি প্রকাশ হলে উপজেলার বাহাদুরপুর ইউপির জয়কৃষ্ণপুর গ্রামের দ্বিতীয় শ্বশুরবাড়ি এলাকার ক্ষুব্ধ লোকজন কাজী তারেককে গণধোলাই দেয়।

গণধোলাইয়ের শিকার কাজী তারেকের বাড়ি উপজেলার বাহাদুরপুর ইউপির কাজীপাড়ায়। তিনি পাংশা উপজেলার হাবাসপুরে ডক্টর কাজী মোতাহার হোসেন কলেজের প্রদর্শক এবং বাহাদুরপুর কাজীপাড়ায় নতুন প্রতিষ্ঠিত পন্ডিত আবুল হোসেন কলেজের গণিত বিষয়ের শিক্ষক।

জানা গেছে, প্রথম স্ত্রী থাকার পরও বছরখানেক আগে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কলেজের এক ছাত্রীকে বিয়ে করে তা গোপন রাখেন তিন সন্তানের জনক কলেজশিক্ষক তারেক। কলেজ পড়ুয়া ওই ছাত্রীর বাড়িও বাহাদুরপুর ইউপির জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে।

এ বিষয়ে ওই কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ তোফাজ্জেল হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে গণধোলাইয়ের ঘটনাটি শুনেছেন বলে তথ্য নিশ্চিত করেন। এ ঘটনার ফলে তিনি বিব্রত বলে জানান। ভুক্তভোগী কলেজশিক্ষক কাজী আব্দুল্লাহ তারেক গণধোলাইয়ের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ঘটনাটি সঠিক। তবে এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে থানায় কোনো অভিযোগ করিনি বলে জানান তিনি।

ফেসবুকে লাইক দিন