সোনার এখন হইছে দেখি লম্বা লম্বা ঠ্যাং!

বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা রাখা হয়েছিল ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম ওজনের সোনার চাকতি ও আংটি, তা হয়ে আছে মিশ্র বা সংকর ধাতু। ছিল ২২ ক্যারেট সোনা, হয়ে গেছে ১৮ ক্যারেট।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের এক অনুসন্ধান প্রতিবেদনে এ ভয়ংকর অনিয়মের তথ্য উঠে এসেছে। দৈবচয়ন ভিত্তিতে নির্বাচন করা বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে রক্ষিত ৯৬৩ কেজি সোনা পরীক্ষা করে বেশির ভাগের ক্ষেত্রে এ অনিয়ম ধরা পড়ে।

প্রতিবেদনটি জাতীয় রাজস্ব বোর্ড হয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে দেওয়া হয়েছে। এই রিপোর্টটি প্রকাশের পর ঝড় উঠে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে।রিপোর্টটি নিয়ে অনেকেই মন্তব্য করেছেন। কিন্তু ‘জয়নব জুঁই’ নামে জাহাঙ্গরিনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী একটি কবিতাই লিখে ফেলেছেন এ নিয়ে। কবিতাটি হল-

সোনার দেশ
জয়নব জুঁই
নিউজ দেখে নিজের নখ
নিজের দাঁতেই কাটি!
সোনার বাংলাদেশ এখন
নয় কিছুতেই খাঁটি।
সোনার এখন হইছে দেখি
লম্বা লম্বা ঠ্যাং!
বাইশ ক্যারেট আঠারো বানায়
বাংলাদেশ ব্যাংক।
ভল্টে রাখা সোনার চাকতি
হয়ে যাচ্ছে ধাতু।
কোনদিন জানি মণ্ডা-মিঠাই
হয়ে যাবে ছাতু!
আস্থা এখন বস্তাবন্দি
বিশ্বাস এখন মরা।
সোনার জমিন দিনে দিনে
মাটি দিয়েই ভরা।
নীতির কথা বাদই দিলাম
দুর্নীতির ঘাঁটি…
ধীরে ধীরে হচ্ছে আমার
বাংলাদেশের মাটি!

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে রাখা স্বর্ণে কোনো প্রকার হেরফের হয়নি।

ফেসবুকে লাইক দিন