সিরিয়ায় মার্কিন জোটের হামলায় নারী ও শিশুসহ প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ৫০ জন

ইমান২৪.কম: সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় দেইর এজ-জর প্রদেশে সশস্ত্র জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটসের (আইএস) ঘাটি লক্ষ্য করে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের করা হামলায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নারী ও শিশুসহ প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ৫০ জন। এতে আহত হয়েছে আরও কমপক্ষে বেশ কিছু বেসামরিক। স্থানীয় সূত্রের দেওয়া তথ্যের বরাতে করা প্রতিবেদনে এই হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে লন্ডন ভিত্তিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় বিকালে প্রদেশটির বাগোজ শহরে আইএস জঙ্গিদের অবস্থান লক্ষ্য করে এ হামলাটি চালানো হয়। যদিও এই হামলার বিষয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেনি মার্কিন নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক জোটের কর্মকর্তারা। এর আগে গত বছর মার্কিন সহায়তায় ওই অঞ্চলটির দখল নেয় পিকেকে।

পরে গত সেপ্টেম্বরে আইএস নিধনের অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র এবং ফরাসি সেনারা আশপাশের অঞ্চলগুলোতেও হামলা চালায়। ফলে বর্তমানে শুধু বোগোজ শহরেই আইএস জঙ্গিদের উপস্থিতি রয়েছে। নিরাপত্তাজনিত কারণে পরিচয় প্রকাশ না করার সত্ত্বে স্থানীয় সূত্রগুলো জানায়, দেশটির সম্পূর্ণ সীমানার বর্তমানে প্রায় এক-তৃতীয়াংশ এলাকার নিয়ন্ত্রণ রয়েছে সশস্ত্র সংগঠন ওয়াইপিজি/পিকেকে’র হাতে।

তুরস্ক, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসী তালিকায় পিকেকে সদস্যদের নাম রয়েছে। সিরিয়ার ভূমিতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালানোই হচ্ছে পিকেকে’র অন্যতম লক্ষ্য। উল্লেখ্য, ২০১১ সালের পর থেকে সিরিয়ায় শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধে প্রায় আড়াই লাখের বেশি মানুষ প্রাণ হারায়। এতে বাস্তুচ্যুত হয় আরও প্রায় ১০ লক্ষাধিক বেসামরিক।

যদিও দেশটিতে চলমান সংকট নিরসনে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান সম্পূর্ণ বিপরীতধর্মী। দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। মূলত এ জন্য তারা আসাদ সরকারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণাকারী সশস্ত্র সংগঠনগুলোকে অস্ত্র দিয়ে সহযোগিতা করছে। একইসঙ্গে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে বিমান হামলাও চালাচ্ছে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট।

আরও পড়ুন: গরুর ঋণ কোনো দিন শোধ করতে পারব না: নরেন্দ্র মোদি

বাংলাদেশের পদ্মার মা ইলিশ সরিয়ে নিতে ভারতের নতুন 

ফেসবুকে লাইক দিন