সামান্য ভেড়ার বিনিময়ে নিজের স্ত্রীকে তুলে দিলেন পরকীয়া প্রেমিকের হাতে!

ইমান২৪.কম: ভেড়ার বিনিময়ে নিজের স্ত্রীকে পরকীয়া প্রেমিকের হাতে তুলে দিলেন এক যুবক। ভারতের উত্তরপ্রদেশে অভিনব এই ঘটনা ঘটেছে। অবশ্য একটি দুটি নয়, স্ত্রীর বিনিময়ে পেয়েছেন ৭১টি ভেড়া।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের চারপানি পঞ্চায়েত এলাকার সীমা পাল নামে এক বিবাহিতা তরুণীর সঙ্গে উমেশ নামে এক তরুণের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

সীমার স্বামী রাজেশ পালের বাড়ির পাশেই ছিল প্রেমিক উমেশের বাড়ি। গত ২২ জুলাই স্বামীর ঘর ছেড়ে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যান সীমা। হানিমুন সেরে উমেশের বাড়িতেই থাকতে শুরু করে দেন তিনি।

বিষয়টি জানার পর সুবিচার চেয়ে পঞ্চায়েতে অভিযোগ জানান সীমার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। বসানো হয় সালিশ। সব শুনে বিষয়টি নিয়ে পঞ্চায়েত প্রধান যে রায় দেন তাতে সকলেই হতবাক হয়ে যান।

পঞ্চায়েত প্রধান উমেশকে বলেন, সীমাকে স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে রাখা যাবে। বিনিময়ে তার স্বামী রাজেশকে ৭১টি ভেড়া দিতে হবে উমেশের।

উমেশের ১৪২টি ভেড়া রয়েছে। পঞ্চায়েত প্রধানের রায় মেনে সেখান থেকে ৭১টি ভেড়া রাজেশের হাতে তুলে দিতে সম্মত হন তিনি। আর স্বামী রাজেশ পালও সেই ভেড়া নিয়েই সন্তুষ্ট থাকেন। স্ত্রীকে তুলে দেন প্রেমিকের হাতে।

উমেশের বাবা রামনরেশ পাল অবশ্য এই রায় মানতে পারেননি। দ্বারস্থ হন পুলিশের। রাজেশের বিরুদ্ধে ভেড়া চুরির অভিযোগও দায়ের করেন। রামনরেশ বলেন, ছেলে কার সঙ্গে থাকবে সেটা নিয়ে আমার কোনও আপত্তি নেই। শুধু ভেড়াগুলো ফেরত চাই।

যদিও অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে রাজেশ বলেন বলেন, ভেড়া তো আমি চুরি করিনি! আমার স্ত্রীকে দিয়েছি, পরিবর্তে ভেড়া পেয়েছি।

আরো পড়ুন: পরমাণু অ*স্ত্র ব্যবহারের হুঁশিয়ারি দিল ভারত

যুদ্ধ পরিস্থিতি দেখা দিলে, শত্রুপক্ষের বিরুদ্ধে ভারত কখনও প্রথমে পরমাণু অ*স্ত্র ব্যবহার করবে না এমন একটি নীতি রয়েছে। এবার সেই নীতিতে বদল ঘটাতে চলেছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। শুক্রবার এমনই ইঙ্গিত দিলেন দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিংহ।

ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর স্মরণে রাজস্থানের পোখরানে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে এ ইঙ্গিত দেন তিনি। সেখানে তিনি বলেন, ‘ভারতকে পরমাণু শক্তিধর রাষ্ট্রে পরিণত করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ছিলেন অটলজি। তবে পরমাণু অস্ত্রের প্রথম ব্যবহার আমরা করব না, এই নীতিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ছিলেন তিনি।

এখন পর্যন্ত সেই নীতি মেনেই চলছে ভারত। তবে ভবিষ্যতে পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে পরমাণু অস্ত্র প্রয়োগ করবে ভারত।’

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর পাকিস্তান ও ভারতের রাজনৈতিক সম্পর্কে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। ফলে রাজনাথের এই মন্তব্যকে অনেকেই পাকিস্তানের প্রতি হুঁশিয়ারি হিসেবেই দেখছেন।

iman24/t/h

ফেসবুকে লাইক দিন