সামান্য বৃষ্টিতেই ভেঙে পড়লো গৃহহীনদের জন্য উপহারের ঘর

ইমান২৪.কম: মুজিববর্ষ উপলক্ষে গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের একটি ঘর বৃষ্টিতে ধসে পড়েছে। নির্মাণের তিন মাস পার না হতেই গত শুক্রবার (০২ জুলাই) মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের বড় রায়পাড়া গ্রামের উপহারের ওই ঘরটির কিছু অংশ ভেঙে পড়ে।

ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে আরও কয়েকটি ঘর। এ অবস্থায় কাজের মান এবং ঘর নির্মাণের স্থান নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। জানা গেছে, শুক্রবার সকালের দিকে ওই এলাকার উপহারের ২৭ নম্বর ঘরের বারান্দার কিছু অংশ এবং একটি কলাম (খুঁটি) ভেঙে পড়ে। ঘরের নিচ থেকে মাটি সরে যাওয়ায় এমনটা হয়েছে বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।

পাশের ২৮ নম্বর ঘরটিও ঝুঁকিতে রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, সরকারি অনেক খাস জমি থাকা সত্ত্বেও গজারিয়া উপজেলার অধিকাংশ ঘর নির্মাণ করা হয়েছে নদীর ধারে। যেকোনও সময় বন্যা এবং বৃষ্টিপাতে এগুলো নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যেতে পারে। প্রতিটি ঘর এক লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মিত। গজারিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ১৫০টি ঘর নির্মাণ শুরু হয় চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে।

এর মধ্যে বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের বড় রায়পাড়া গ্রামে ৪৭ লাখ ৮৮ হাজার টাকায় ২৮টি ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ হয় মার্চের শেষাংশে। নির্মাণ শেষে ঘরগুলো বরাদ্দ দেওয়া হয়। এখনও সবগুলো ঘরে বসবাস শুরু করেননি উপকারভোগীরা। এ বিষয়ে জানতে গজারিয়া উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তাজুল ইসলামের মোবাইল ফোনে কয়েকবার কল করা হলেও তিনি ধরেননি।

তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জিয়াউল ইসলাম চৌধুরী বলেন, একটি ঘরে কিছু সমস্যা হয়েছে। সেটা আমরা ইতোমধ্যে ঠিক করে দিয়েছি। ঘরগুলোর নিচে নতুন করে মাটি দেওয়া হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আমি এখানে যোগদানের আগেই ঘর নির্মাণের জায়গা নির্বাচন করা হয়েছিল।

তাই ভুল জায়গা নির্বাচন হয়ে থাকলে সেটা আগেই হয়েছে। পানি ও বিদ্যুতের অভাবে বরাদ্দ করা ঘরে উপকারভোগীরা থাকছেন না—এ প্রসঙ্গে ইউএনও বলেন, দেশের সব জায়গার একই অবস্থা। তবে দ্রুত বিদ্যুৎ-পানির ব্যবস্থা করা হচ্ছে। উপকারভোগীদের অনেকে নিজেদের কর্মস্থলে যাওয়ার সুবিধার জন্য বরাদ্দের ঘরে না থেকে ভাড়া থাকে বলে শুনেছি। তাদের বিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়ে দেখছি। প্রয়োজনে তাদের বরাদ্দ বাতিল হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন