সাত বছর বয়সে হাফেজ হয়ে তাক লাগিয়ে দিলেন ফিলিস্তিনি শিশু আবু ত্বহা

ইমান টোয়েন্টিফোর ডটকম: মাত্র ৭ বছর বয়সে পুরো কুরআনুল কারীম মুখস্থ করে বিস্ময় সৃষ্টি করেছেন ফিলিস্তিনি শিশু ইয়াহইয়া নূরুদ্দিন রঈস আবু ত্বহা। এ কৃতিত্ব অর্জনের মাধ্যমে অধিকৃত গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর রাফাহে জন্ম নেয়া এই শিশু স্বীকৃতি পেয়েছে ফিলিস্তিনের কনিষ্টতম হাফেজে কুরআনের।

আন্তর্জাতিক কুরআন নিউজ এজেন্সি ইকনা-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ইয়াহইয়া নূরুদ্দিন তার ভবিষ্যৎ স্বপ্নের কথাও উল্লেখ করেছেন।তিনি বলেছেন, আমার আকাঙ্খা পূন্যময়ী নগরী জেরুসালেমকে প্রাণভরে যেয়ারত করা এবং মুসলমানদের প্রথম কিবলা খ্যাত পবিত্র মসজিদ আল আকসায় নামাজ আদায় করা।

তাছাড়া, পড়াশোনা করে অনেক বড় মানুষ হওয়ারও স্বপ্ন তার। ‘আমি অনেক পড়াশোনা করতে চাই এবং খুব বড় হব আমি। বড় হয়ে একজন দক্ষ চিকিৎসক হওয়ার প্রতিও আমার প্রচন্ড আগ্রহ’ বলেন ইয়াহইয়া।

সন্তানের এমন অভাবনীয় সাফল্যে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন শিশু ইয়াহিয়ার পরিবারও। তার মাতা বলেন, অধিকৃত ফিলিস্তিনের সর্বকনিষ্ঠ হাফেজ হওয়ার গৌরব অর্জন করায় আমাদের সন্তানকে নিয়ে আমাদের গর্ব হচ্ছে,আমরা তার উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করি।

এদিকে খান ইউনুসে অবস্থিত ইয়াহইয়া নূরুদ্দিনের মাদরাসা ‘আল মুহাজিরুনাশ শারঈয়্যাহ লি-তাহফিজিল কুরআনিল কারীম’এর পরিচালক নাসির আবু আরির বলেন, আমরা আমাদের প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি শিক্ষার্থীর প্রতি বিশেষ মনোযোগ দিই, তবে ইয়াহইয়া শুরু থেকেই আমাদের মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল-সবসময় তার মধ্যে আমরা আলাদা বৈচিত্র্য লক্ষ্য করতাম। আর সে আমাদের আস্থার প্রতিদান দিয়েছে; মাত্র ৭ বছর বয়সে সম্পূর্ণ কুরআনে কারীম মুখস্থ করে সে সম্মানিত করেছে আমাদের।

হাস্যজ্বল চেহারায় ইয়াহইয়ার পিতা নূরুদ্দিন বলেন,আমার জীবনের সবচে বড় প্রাপ্তি এটাই যে,আমার আছে একজন হাফেজে কুরআন সন্তান!

আমি সবসময় কুরআন হিফজের প্রতি তাকে উৎসাহ দিতাম এবং দিনদিন পড়াশোনায় উন্নতির জন্য তার প্রসংশা করতাম। আর ইয়াহইয়া এতো অল্প বয়সেও অত্যন্ত মেহনত করে এই মহাগৌরব অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন