সরকারকে সরিয়ে দেওয়া ঈমানি দায়িত্ব: মান্না

ইমান২৪.কম: নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘বর্তমান সরকার লুটপাটের শীর্ষে রয়েছে। এই সরকার রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে সাধারণ মানুষের ওপর বিভিন্নভাবে নির্যাতন চালিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়।

এদের কোনো সাংগঠনিক বৈশিষ্ট্য নেই।’ শনিবার (১৩ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে ‘নাগরিক ঐক্যে যোগ দিন’ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মান্না এসব কথা বলেন। এ সময় নাগরিক ঐক্যের নেতাকর্মীরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

মান্না বলেন, ‘অনেকে বলে নাগরিক ঐক্য ছোট দল কিন্তু সরকার আমাদের অনুমতি দিক, আমরা সারাদেশে সমাবেশ করবো। দেখিয়ে দেব, নাগরিক ঐক্য ছোট দল কি বড় দল। এরা আমাদের সমাবেশের অনুমতি দিতে ভয় পায়।

এই সরকারের বিরুদ্ধে কোনো আন্দোলন হলে তারা জনস্রোতকে ভয় পায়। কারণ এরা অবৈধভাবে ক্ষমতায় এসেছে, যার কারণে সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে পুলিশ দিয়ে আন্দোলন বন্ধ করে দেয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেয়া দেশের মানুষের ঈমানি দায়িত্বের মধ্যে পড়েছে।

দেখি এরা এভাবে কতদিন ক্ষমতায় থাকতে পারে। এই সরকার এখন আর নিজস্ব গুন্ডা দিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে না, এখন তাদের সিস্টেম পাল্টিয়ে নতুন সিস্টেম ধরেছে। এখন পুলিশ-প্রশাসন নিজেরাই গুন্ডা হিসেবে কাজ করে। তাই তাদেরকে ব্যবহার করে। কোনো গুন্ডা বাহিনী দিয়ে অবৈধভাবে ক্ষমতায় চিরস্থায়ী হওয়া যাবে না।

জনগণ এটা মেনে নেবে না। প্রশাসন ছাড়া মাঠে আসেন, দেখি কত সময় আপনারা ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারেন।’ মান্না বলেন, ‘সম্প্রতি লেখক মুশতাককে কথিত ডিজিটাল আইনে মামলা দিয়ে কারাগারে প্রেরণ করে এই জালিম সরকার। এরপর মুশতাক কারাগারে মৃত্যুবরণ করেন।

এ কালো আইন অবিলম্বে বাতিল করা হোক, অন্যথায় নাগরিক ঐক্যের নেতাকর্মীরা রাস্তায় নেমে পড়বে। দেশের পত্রিকা ও টেলিভিশনের গলায় পাড়া দিয়ে তাদের কথা বলতে দিচ্ছে না।’ মান্না বলেন, ‘এখন আমাদের মূলত একটাই দাবি- হাসিনা সরকারের পতন এবং নতুন করে নির্বাচন দিতে হবে। এই লক্ষ্যে আপনারা যে যেখান থেকে দাঁড়াবেন, নাগরিক ঐক্যের নেতাকর্মীরা আপনাদের পাশে থাকবে ইনশাল্লাহ।

ফেসবুকে লাইক দিন