সংসদ নির্বাচন: কি ভাবছে সাধারণ মানুষ?

সংসদ নির্বাচন: কি ভাবছে সাধারণ মানুষ? এই শিরোনামে জনপ্রিয় অনলাইন মিডিয়ায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, ঈমান২৪ডটকম পাঠকদের উদ্দেশ্যে তা হুবহু তুলেরা হলোঃ-

সামনেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তবে নির্বাচনকালীন সরকার ইস্যুতে এখনও সমঝোতায় পৌঁছাতে পারেনি দেশের বড় দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ-বিএনপি। আওয়ামী লীগ সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে বললেও বিএনপি নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে অনড়।

এ অবস্থায় নির্বাচনকে ঘিরে সহিংসতার আশঙ্কা জনমনে। তারা বলছেন, সব দলের অংশগ্রহনে নির্বাচন না হলে সংঘাতের ঘটনা ঘটতে পারে। ব্যবসায়ী ফয়সাল কবির ফরায়েজী বলেন, যে পরিস্থিতি দেখছি, দেশ সংঘাতের দিকেই যাচ্ছে কিন্তু আমরা চাই একটি সুষ্ঠু নির্বাচন হোক।

সব দল মিলে আলাপ-আলোচনা করে একটা সিদ্ধান্তে আসতে পারলে সংঘাত হবে না। বেসরকারি চাকরিজীবী ফারুক আলম বলেন, নির্বাচন নিয়ে সংঘাত হোক, এমনটি কাম্য নয়। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য ক্ষমতাসীন ও প্রধান বিরোধী দলের মধ্যে আলোচনা দরকার।

এদিকে, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্তমান নির্বাচন কমিশনের (ইসি) জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ বলে বলছেন অনেকেই। তারা বলছেন, নির্বাচন কমিশন যদি তাদের দায়িত্ব নিরপেক্ষভাবে পালন করতে পারে তাহলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব। বেসরকারি চাকরিজীবী ইসমাইল হোসেন রাসেল বলেন, ভোট একটি দেশের জনগণের অন্যতম গণতান্ত্রিক অধিকার। সেই অধিকার প্রয়োগে সবার মাঝেই কিছু প্রশ্ন থেকে যায়, ভোটটি সুষ্ঠু হবে কিনা, ভোটাররা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবে কিনা।

সেই প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে চলতি বছরের শেষের দিকের জাতীয় নির্বাচনে। এই নির্বাচনের সবচেয়ে বড় বাধা বিশৃঙ্খলা। একটি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে আয়োজন করা নির্বাচন কমিশনের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ কমিশন কতটা মোকাবেলা করতে পারবে সেটি এখন বড় প্রশ্ন।

ইতোমধ্যে কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন। সেই প্রতিশ্রুতি কতটা বাস্তবায়িত হবে তা নিয়ে প্রশ্ন এবং সংশয় দুটিই রয়েছে। তবে সব দলের অংশগ্রহনে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন প্রত্যাশা করি, সেই প্রত্যাশা পূরণে কমিশন সফল হবে বলে আশা রাখি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবু হানিফ বলেন, সব দলের অংশগ্রহণে যদি নির্বাচন হয় সেক্ষেত্রে সংঘাত হওয়ার সম্ভাবনা কম। তবে যদি কোন রাজনৈতিক দলকে নির্বাচনের বাহিরে রেখে নির্বাচন হয় তাহলে সংঘাত হতে পারে। আর ইসি যদি তার দায়িত্ব সঠিক ও নিরপেক্ষ ভাবে পালন করতে পারে তাহলে সুষ্ঠু নির্বাচন আশা করা যায়।

সাইদুর রহমান তানভীর নামের আরেক শিক্ষার্থী বলেন, সব দলের অংশগ্রহনে যদি একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন হয় তাহলে সংঘাত হবে না। আর না হয় সংঘাত অনিবার্য। আমি চাই সরকার এমন একটি পরিস্থিতি তৈরি করুক, যাতে সকল দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারে।

বেসরকারি চাকরিজীবী জাহাঙ্গীর কবির বলেন, আগামী নির্বাচন নিয়ে অনেকের মত আমিও শঙ্কিত। নির্বাচন হবে কি না এটা যেমন একটা প্রশ্নের জন্ম দিয়ে যাচ্ছে তেমনি নির্বাচন হলেও সব দল আসবে কি না সেটাও প্রশ্ন। সব মিলিয়ে জাতীয় নির্বাচন শব্দটাই আমাদের কাছে একটা শঙ্কা।

ফেসবুকে লাইক দিন