শিশুকে পলিথিন মুড়িয়ে রাস্তার ধারে ফেলে পালিয়েছে এক নারী

ইমান২৪.কম: নব;জাতক এক মেয়ে শিশুকে পলিথিন মুড়িয়ে রাস্তার ধারে ফেলে পালিয়েছেন এক নারী। পরে অপর এক পথচারী নারী তাকে নগর পুলিশের এসএএফ শাখায় কর্মরত নায়েক দেবরঞ্জন চাকমার কোলে তুলে দিয়েছেন।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে চট্টগ্রাম মহানগরের সার্কিট হাউজের পাশে রাস্তায় পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় পড়ে থাকা এই শিশুকে উদ্ধার করা হয়। এরপর দেবরঞ্জন চাকমা শিশুটিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন।

দেবরঞ্জন চাকমা জানান, সার্কিট হাউজে ডিউটি করার এক ফাঁকে কাজির দেউড়িতে নাস্তা করতে যাচ্ছিলাম। সে সময় এক নারীকে দেখলাম রাস্তার পাশে আইল্যান্ডে একটা বস্তা ফেলে চলে যাচ্ছে। তবে আমি তাকে ফলো না করেই চলে যাই।

এর কিছুক্ষণ পরেই আরেক পথচারী নারী দৌড়ে আমার কাছে এসে জানালেন, রাস্তার পাশে পলিথিনের মধ্যে একটা বাচ্চা কান্না করছে। এরপর আমি দৌড়ে গিয়ে দেখি পলিথিনের ভেতর বাচ্চাটা তখনও জীবিত। দ্রুত উদ্ধার করে চমেকে নিয়ে যাই।’

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার বলেন, হাসপাতালের ৮ নাম্বার ওয়ার্ডে শিশুটিকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। শুনছি, শিশুটি চুরি করে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তার বাবা শিক্ষক ও মা গৃহিনী।

তারা পাঁচলাইশ থানায় অভিযোগ করতে গেছেন। তবে বিকেল পাঁচটা নাগাদ শিশুটির বাবা-মা হাসপাতালে আসেননি। এদিকে বিকেল ৩টা ২০ মিনিটের দিকে নায়েক দেবরঞ্জন চাকমা বলেন, শিশুটির বাবা-মা কে তা জানা গেছে।

তারা সনাতন ধর্মাবলম্বী। তাদের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশে। তাৎক্ষণিক এর বেশি জানাতে পারেননি নায়েক দেবরঞ্জন। সিএমপির পাঁচলাইশ থানার ওসি আবুল কাশেম ভূঁইয়া বলেন, শিশুটির বিষয়ে কেউ বিকেল পাঁচটা নাগাদ থানায় আসেনি।

ফেসবুকে লাইক দিন