রোজায় মুসলিমদের ছুটি নিতে বলে বিপাকে পরেছেন ডেনিশ মন্ত্রী

রমজান মাসে যে মুসলিমরা বাস চালান বা হাসপাতালে কাজ করেন – রমজানের সময় তাদের ছুটি নেয়া দরকার’ – এমন কথা বলে সমালোচনার মুখে পড়েছেন ডেনিশ অভিবাসন মন্ত্রী ইনগার স্টোইবার্গ।

কট্টর অভিবাসন নীতি প্রণয়নের জন্য আলোচনায় আসা এই মন্ত্রী বলেছেন, মুসলমানরা রোজা রেখে কাজ করলে তারা সমাজের বাকি অংশের জন্য নিরাপত্তা হুমকি তৈরি করতে পারেন। এই মন্ত্রী বলেছেন , “সারা দিন ধরে রোজা রেখে কাজ করলে আধুনিক সমাজের জন্য চ্যালেঞ্জ তৈরি হয়।”

মিজ স্টোইবার্গ বিশেষ করে বাসচালক এবং হাসপাতাল কর্মী হিসেবে যারা কাজ করেন তাদের কথা বলেন।কিন্তু মন্ত্রীর এ কথার পর সবচেয়ে আগে জবাব দিয়েছে বাস কোম্পানিগুলোই। তারা বলছে, রমজান নিয়ে তাদের কোন সমস্যা নেই।

এই মন্ত্রী বলেছেন এক নিবন্ধে লিখেছিলেন, ডেনমার্কে যে মুসলিমরা রোজা রাখছেন তারা ১৮ ঘন্টা খাদ্য বা পানি খেতে পারবেন না। কিন্তু আধুনিক ডেনমার্কে কাজের সময় কখনো কখনো লম্বা হয়, এবং অনেক সময় বিপজ্জনক যন্ত্র চালাতে হয়।

“তাই” – মন্ত্রী বলেন – “বাস চালকরা যদি ১০ ঘন্টার বেশি সময় কিছু না খেয়ে থাকেন তাহলে নিরাপত্তা এবং উৎপাদনশীলতা ব্যহত হতে পারে।”

“তাই ডেনিশ অভিবাসন মন্ত্রী ইনগার স্টোইবার্গ বলেন, আমি আহ্বান জানাচ্ছি মুসলিমরা যেন রমজান মাসে কাজ থেকে ছুটি নেন – যাতে বাকি ডেনিশ সমাজের ওপর কোন নেতিবাচক প্রভাব না পড়ে,”।

এর জবাবে আভিভা নামে একটি বাস পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠানের মুখপাত্র পিয়া হামারশোই স্প্লিটর্ফ একটি পত্রিকাকে বলেছেন, “রোজা রেখে বাস চালানোর সময় ড্রাইভার দুর্ঘটনা ঘটিয়েছেন এমন কোন ঘটনা কখনো ঘটে নি। কাজেই এটা আমাদের জন্য কোন সমস্যা নয়।”

ডেনমার্কের ট্রান্সপোর্ট ইউনিয়নও বলেছে, মন্ত্রী ইনগার স্টোইবার্গ কি এমন একটি সমস্যা সৃষ্টি করতে চাইছেন যার কোন অস্তিত্ব নেই?

ডেনিশ মুসলিম ইউনিয়ন সামাজিক মাধ্যমে একটি বার্তা দিয়ে মন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিয়েছে তার উদ্বেগের জন্য। তার পর তারা বলছে, মুসলিম প্রাপ্ত বয়স্ক রোজা রাখার সময়েও তারা নিজেদের এবং সমাজের যত্ন নিতে পারে।

আরও খবরঃ চীনে মুসলিমদের মদ-শুকুর খেতে বাধ্য করা হচ্ছে

>পাঁচ ওয়াক্ত আযান সম্প্রচার না করলে টিভির লাইসেন্স বাতিলের নির্দেশ উচ্চ আদালতের

>চুল-দাড়ি কেটে বাবা আমাকে পূজা করতে বাধ্য করেছিল, তবুও আমি ইসলামে অটল থেকেছি

ফেসবুকে লাইক দিন