রাস্তায় নামলে সরকারের পতন হবে: মির্জা আব্বাস

ইমান টোয়েন্টিফোর ডটকম: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, স্লোগান মিছিলে-মিটিংয়েই সীমাবদ্ধ থাকে। রাস্তায় কি আমরা এই স্লোগান, মিছিল নিয়ে নামতে পারি না? যদি আমরা না পারি তাহলে দেশনেত্রীর মুক্তি হবে না। যেদিন আমরা নামতে পারবো সেদিন দেশনেত্রীর মুক্তির প্রয়োজন হবে না এই সরকার তখন দেশ ছেড়ে পালিয়ে বাচবে।

রোববার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর বিএনপি আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা আব্বাস বলেন, পেঁয়াজ কেলেঙ্কারিতেই বাজার থেকে দেড় হাজার কোটি টাকা লোপাট হয়ে গেছে। এতো উন্নয়ন হচ্ছে যে, উন্নয়নের জোয়ারে মানুষ ভেসে যায়। সামান্য বৃষ্টি হলে রাজধানীবাসী ভেসে যায়। আমরা উন্নয়ন চাই, কিন্তু দুর্নীতির উন্নয়ন চাই না। আজকে ১১ বছর ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ এতো লুটতরাজ কোথায় হয়?

তিনি বলেন, আজকে অবাধ দুর্নীতি চালানোর জন্য স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব হরণ করার জন্য বিদেশী প্রভুদের নির্দেশে বেগম খালেদা জিয়াকে আটকে রাখা হয়েছে। বড় বড় আসামীরা মুক্তি পাচ্ছে কিন্তু বিনা অপরাধে আটক করে রাখা বেগম জিয়া মুক্তি পাচ্ছে না। নির্দেশিত আদেশে তিনি জেলে আছেন। সারা দেশে বিএনপির মিছিল-মিটিংয়ে বাধা দেয়া হচ্ছে, বাধা উপেক্ষা করে জনগণ সভা-সমাবেশে অংশগ্রহণ করছে। তারা চায় মিছিল=মিটিং হবে জেলের তালা ভেঙে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনতে হবে। আমরা যতটানা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চাই, তারচেয়ে বেশি চায় দেশের জনগণ। শুধু সময়ের অপেক্ষা। একটা সময় আসবে তাকে জেলের তালা ভেঙে দেশের মানুষ মুক্ত করে আনবে।

মহানগর দক্ষিন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশারের সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক শহিদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সহ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম ও মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আহসানুল্লাহ হাসানের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, মোহাম্মদ শাহজাহান, এজেডএম জাহিদ হোসেন, নিতাই রায় চৌধুরী, আমানউল্লাহ আমান, জয়নুল আবদিন ফারুক, আবদুস সালাম, রুহুল কবির রিজভী, ফজলুল হক মিলন, নাজিমউদ্দিন আলম, আজিজুল বারী হেলাল, মীর সরফত আলী সপু।

বিএনপির অঙ্গসংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বজলুল বাসিত আনজু, নবী উল্লাহ নবী, সাইফুল আলম নিরব, সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, শফিউল বারী বাবু, আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল, আনোয়ার হোসেন, সুলতানা আহমেদ, হাসান জাফির তুহিন, হেলেন জেরিন খান, আবদুর রহিম, ফজলুর রহমান খোকন, ইকবাল হোসেন শ্যামল, রফিকুল আলম মজনু, শফিকুল আলম মিল্টন, এস এম জিলানী, ফখরুল ইসলাম রবিন বক্তব্য রাখেন।

সমাবেশে বিএনপির সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শিরিন সুলতানা, শাম্মী আখতার, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, এবিএম মোশাররফ হোসেন, মাহবুবুল হক নান্নু, শামীমুর রহমান শামীম,আবদুল আউয়াল খান, আনিসুর রহমান তালুকদার, মামুন বিন আব্দুল মান্নানসহ কেন্দ্রীয় ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

ফেসবুকে লাইক দিন