রাসুলের শানে বেয়াদবি বন্ধে ইরমান খানের ভিন্নরকম উদ্যোগ (ভিডিওসহ)

ইমান২৪.কম: ডেনমার্কে মহানবি সা. এর কার্টুন আঁকার এক বিতর্কিত প্রতিযোগিতার আয়োজনে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে মুসলিম বিশ্ব। সারা বিশ্বের মুসলিম এ অন্যায়ের প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

এবার সাধারণ মানুষের পাশাপাশি মুসলিম দেশের রাষ্ট্র প্রধানরাও মুখ খুলছেন বিষয়টিতে। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তায়্যিব এরদোগানের পর এ বিষয়ে মুখ খুলেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

পাকিস্তানের সদ্য নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ও সাবেক ক্রিকেট তারকা ইমরান তার অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজ এ ঘৃণ্য কাজের প্রতিবাদ জানিয়ে ভিডিও পোস্ট করেছেন।

তিনি তার ভিডিও পোস্টে বিষয়টিকে জাতিসংঘে উপস্থাপনের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে কেউ যেনো নবি করিম সা. এর সঙ্গে বেয়াদবি করতে না পারে এজন্য জাতিসংঘের মাধ্যমে একটি স্থায়ী সমাধানের চিন্তা করছে তার সরকার।

ইমরান খানের সেই ভিডিও বক্তব্য বাংলায় হুবহু তুলে ধরা হলোঃ

“বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম। আজ হল্যান্ডে রাসুল সা. এর সঙ্গে বেদায়বির বিষয় নিয়ে সারা বিশ্ব উত্তাল আমি স্পষ্ট করতে চাই এটা কোনো একজন মুসলমানের বিষয় নয়, সারা বিশ্বের মুসলমানের বিষয়।

বিশ্বের প্রত্যেক মুসলিম, সে যেখানেই থাকুক না কেনো এটা আমাদের সবার বিষয়। নবি করিম (সা.) আমাদের হৃদয়ে বাস করেন। যখন কেউ তার সঙ্গে বেয়াদবি করে তখন আমাদের সবার কষ্ট হয়।

আমাদের কষ্টটা পশ্চিমের মানুষ বোঝে না। কারণ, আমরা তাদের বোঝাতে পারিনি। তারা যে দৃষ্টিতে তাদের ধর্মকে দেখে এবং আমরাও আমাদের ধর্মকে সেভাবেই দেখি।

আমরা তাদের তখনি বোঝাতে পারবো যখন শুধু একটি রাষ্ট্র তাদের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ করবে না; বরং সব মুসলিম রাষ্ট্র তার প্রতিবাদ করবে। ওআইসির মাধ্যমে আমরা তা করতে পারি।

ওআইসিতে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাতিসংঘে প্রস্তাব পেশ করতে পারি। সেখানে বলতে পারি, বারবার আমাদের নবির সঙ্গে বেয়াদবি করলে আমাদের কী পরিমাণ কষ্ট হয়। বিশ্বের সব মুসলিম রাষ্ট্র যদি ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাতিসংঘে উপস্থাপন করতে পারি তাহলে কেবল এমন অন্যায় প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।

আমি আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মুহাম্মদ কোরাইশিকে এ বিষয়ে বলেছি। তিনি ওআইসির সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে কথা বলছেন।

আমরা ইনশাআল্লাহ জাতিসংঘের সদরদপ্তরে বৈঠক করবো। শক্তিশালী প্রতিবাদ করবো। আমরা তাদের বোঝাবো। আসলে খুব অল্প মানুষই মন্দ কাজ করে। যার দায় বহন করতে হয় অধিকাংশ মানুষকে।

আমরা বোঝাবো, এই অল্প সংখ্যক মানুষের অধিকার নেই পৃথিবীর শত শত কোটি মানুষের মনে আঘাত করার। ইনশাআল্লাহ আমরা সফল হবো।”

ইমরান খানের এই বক্তব্য মুসলিম বিশ্বে আশার সঞ্চার করেছে।

আরও পড়ুনঃ হেলিকপ্টারে অফিসে যাচ্ছেন ইমরান খান; সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড়

সংশোধনের নামে ১০ লাখ মুসলিমকে আটকে রেখেছে চীন; উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ

পাকিস্তানের বিক্ষোভে ভিত হয়ে মহানবীকে নিয়ে কার্টুন প্রতিযোগিতা বাতিল

ফেসবুকে লাইক দিন