রজব মাস: উম্মতের উত্তম হাদিয়া

আল্লাহ তায়ালা চারটি মাসকে ‘আশহুরে হুরুম’ তথা সম্মানিত মাস বলেছেন ৷ তিনটি ধারাবাহিক : যিলকদ, যিলহজ্ব, মহররম আর চতুর্থটি হল রজব, যা জুমাদাল উখরা ও শাবান মাসের মধ্যবর্তী মাস।

উলামায়ে কেরাম বলেছেন, আশহুরে হুরুমের এই বৈশিষ্ট্য রয়েছে যে, এসব মাসে ইবাদতের প্রতি যত্নবান হলে বাকি মাসগুলোতে ইবাদতের তাওফীক হয়। আর আশহুরে হুরুমে কষ্ট করে গুনাহ থেকে বিরত থাকতে পারলে অন্যান্য মাসেও গুনাহ পরিহার করা সহজ হয়।-আহকামুল কুরআন, জাসসাস ৩/১১১; মাআরিফুল কুরআন ৪/৩৭২

স্মরণ রাখা উচিত যে, শরীয়তের পক্ষ থেকে এ মাসের জন্য বিশেষ কোনো নামায, বিশেষ কোনো রোযা বা বিশেষ পদ্ধতির কোনো আমলের হুকুম দেওয়া হয়নি। তাই বাজারের অনির্ভরযোগ্য বই-পুস্তকে রজব মাস উপলক্ষে বিশেষ নামায ও রোযার যেসব কথা পাওয়া যায় তা সবই ভিত্তিহীন। এ ধরনের মনগড়া আমল দ্বারা এ মাসের ফযীলত লাভ করা সম্ভব নয়।

তবে রজব মাস শুরু হলে প্রিয় নবী বেশি বেশি এ দোয়া পাঠ করতেন, তাই আমরাও এ দোয়া বেশি বেশি পাঠ করা কাম্যঃ

ﺍَﻟﻠﻬُﻢَّ ﺑَﺎﺭِﻙْ ﻟَﻨَﺎ ﻓِﻰْ ﺭَﺟَﺐَ ﻭَ ﺷَﻌْﺒَﺎﻥَ ﻭَ ﺑَﻠِّﻐْﻨَﺎ ﺭَﻣَﻀَﺎﻥَ( رواه البيهقي في شعب الايمان).

উচ্চারণ : ‘আল্লাহুম্মা বারিক লানা ফি রাঝাবা ওয়া শা’বানা ওয়া বাল্লিগনা রামাদান।’ অর্থ : হে আল্লাহ! তুমি আমাদের জন্য রজব ও শা’বান মাসে বরকত দাও এবং আমাদেরকে রমজান পর্যন্ত পৌঁছিয়ে দাও। (বাইহাকী)

আল্লাহ আমাদেরকে সঠিকভাবে আমল করার তৌফিক দান করুন। আমিন।।

লেখক ও সম্পাদকঃ মুফতি শহীদুল্লাহ নজীব আল-হাবিবী

ফেসবুকে লাইক দিন