যুদ্ধক্ষেত্রে ভারতকে উপযুক্ত জবাব দেবে পাক সেনাবাহিনী: জেনারেল আসিফ গফুর

ইমান২৪.কম: পুলওয়ামা হামলাকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশী দুটি দেশ ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। প্রতিদিনই দু দেশের উচ্চপদস্থ লোকজন পরস্পরের প্রতি নানা হুমকি দিচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার নয়াদিল্লিকে সরাসরি হুমকি দিলেন আইএসপিআর’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আসিফ গফুর

প্রথম থেকেই এ হামলার জন্য ইসলামাবাদ সরকারেক দায়ী করে পাকিস্তানের ওপর হামলা চালানোর হুমকি দিয়ে চলেছে ভারত। প্রধানমন্ত্রী মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংসহ বিভিন্ন কর্মকর্তারা পাকিস্তানকে দেখে নেযার হুমকি দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, পাকিস্তানকে গোটা বিশ্বে একঘরে করারও প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন মোদি।

এর জবাবে বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ভারত হামলা চালালে তার দেশ বসে থাকবে না। তিনি তার সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকারও নির্দেশ দিয়েছেন।

ইমরানের এই নির্দেশের পর পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর বা আইএসপিআর’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আসিফ গফুর বলেছেন, পাকিস্তানের সেনাবাহিনী যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত এবং যুদ্ধক্ষেত্রে তারা ভারতকে উপযুক্ত জবাব দেবে।

জেনারেল আসিফ গফুর দাবি করেন, ‘ভারত যুদ্ধ শুরুর চেষ্টা করছে কিন্তু আমরা তা করছি না। আমরা শুধু আমাদের দেশকে রক্ষার চেষ্টা করছি যা আমাদের অধিকার।’

এরপরই তিনি ভারতকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘আমরা আপনাদেরকে আশ্বস্ত করছি যে, আপনারা আগ্রাসন শুরু করলে আমাদের সেনাবাহিনী বিস্মিত হবে না, কিন্তু আমরা আপনাদেরকে বিস্মিত করে দেব। আশা করি আপনারা বার্তা পেয়েছেন এবং পাকিস্তানের সঙ্গে সংঘাতে জড়াতে যাবেন না। সেনারা তাদের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত মাতৃভূমি রক্ষার জন্য লড়াই করবে।’

জেনারেল আসিফ গফুর বলেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী ভারতকে জবাব দিয়েছেন কিন্তু সামরিক বাহিনীর জবাব হবে ভিন্ন।’

শুক্রবার রাওয়ালপিন্ডিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি আরো বলেন, ‘ভারত এখনো দু দেশ ভাগ হয়ে যাওয়ার বাস্তবতাকে মেনে নিতে পারেনি। এজন্যই ১৯৬৫ সালে ভারত পাকিস্তানের ওপর যুদ্ধ চাপিয়ে দিয়েছে এবং আত্মরক্ষার কথা বলে তারা পরমাণু অস্ত্র বানিয়েছে। এছাড়া, ভারত সবসময় সন্ত্রাসবাদের মাধ্যমে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে আসছে।’

তার মতে, কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলায় পাকিস্তানের জড়িত থাকা কোনো প্রমাণ ছাড়াই ভারত ইসলামাবাদকে দোষারোপ করেছে।

এ ক্ষেত্রে তার যুক্তি, ‘কাশ্মীরের সীমান্ত রেখা বরাবর ভারতের কয়েক স্তরের সেনা রয়েছে। সীমান্ত থেকে কয়েক মাইল ভেতরে হামলা হয়েছে। ভারতের এসব সেনাকে এড়িয়ে কী করে পাকিস্তানি সেনারা সেখানে হামলা করতে পারে? এক্ষেত্রে ভারত তাদের সেনাবাহিনীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে।’

এরপর তিনি ভারত সরকারের প্রতি সংলাপের মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব দেন।

যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি পাকিস্তানের, হাসপাতালগুলো প্রস্তুত রাখার নির্দেশ!

যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি পাকিস্তানের, হাসপাতালগুলো প্রস্তুত রাখার নির্দেশ!

ইমান২৪.কম: কাশ্মীরে সেনা বহরে হামলার পর ক্রমেই উত্তেজনার বাড়ছে পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে। যদিও দুই দেশের সরকার শান্তিপূর্ণ সমাধানের কথায় বলছে। তবে যুদ্ধের আশঙ্কা পিছু ছাড়ছে না কারো। তারই অংশ হিসেবে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে উভয় দেশ।

সর্বশেয় ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া খবর দিয়েছে, যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী। এমনকি দেশটির হাসপাতালগুলোকে প্রস্তুত থাকতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে খবরে বলা হয়েছে।

পত্রিকাটি দাবি করছে, তাদের হাতে এমন দুটি নথি এসেছে যা থেকে প্রমাণিত হয় পাকিস্তান ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে। নথি দুটির মধ্যে একটি বেলুচিস্তানের পাকিস্তানি সেনাঘাটির এবং অপরটি পাক অধিকৃত কাশ্মীরের স্থানীয় প্রশাসনকে (পিওকে) দেওয়া একটি নোটিশ।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি জিলানি হাসপাতালকে চিঠি দিয়ে জরুরি অবস্থার জন্য তৈরি থাকার নির্দেশ দিয়েছে কোয়েটার পাক সেনাঘাঁটি। হেডকোয়ার্টার্স কোয়েটা লজিস্টিকস এরিয়ার ফোর্স কমান্ডার জিলানি হাসপাতালের আবদুল মালিককে চিঠিতে লিখেছেন, ভারতের সঙ্গে জরুরি ভিত্তিতে যুদ্ধ লাগলে সিন্ধ ও পাঞ্জাব থেকে আহত সেনা ও সাধারণ মানুষ হাসপাতালে আসতে পারে।

প্রাথমিক চিকিৎসা নেওয়ার পর সেই হাসপাতাল থেকে তাদের বেলুস্তানের সিভিল হাসপাতালে পাঠানোর পরিকল্পনা হবে। প্রয়োজন হলে সেনা হাসপাতালের পাশাপাশি সাধারণ হাসপাতালেও ২৫% আসন আহত সৈনিকদের জন্য সংরক্ষিত করে রাখার নির্দেশ দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: পাক-ভারত সীমান্তে গোলাগুলি : মর্টার শেল ও ভারী গোলাবর্ষণ

চুপ করে বসে থাকবো না, পাল্টা হামলা চালাব: ইমরান খান

হামলার জবাব দিতে কতটুকু প্রস্তুত ভারতের সেনাবাহিনী?

ভারত-পাকিস্তান সিমান্ত রণসাজে সজ্জিত, ৬০০ ট্যাংক পাঠালো পাকিস্তান

আবারও ব্যাপক সংঘর্ষ কাশ্মীরে, ভারতীয় বাহিনীর মেজর-সহ নিহত ৫

জাপানি নারীর ইসলাম গ্রহণের হৃদয়বিধারক ঘটনা ও পর্দার প্রতি সন্মান

ফেসবুকে লাইক দিন