যমুনার ভাঙনে বিলীন হচ্ছে মসজিদ, মাদরাসা, বসতবাড়ি

যমুনার ভাঙনে জামালপুরের বিভিন্ন এলাকার বসতবাড়ি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ ফসলি জমি বিলীন হয়ে গেছে। এখনো নেওয়া হয়নি প্রতিরোধের কোনো ব্যবস্থা। বরাদ্দ না থাকায় কোন উদ্যোগ নেয়া যাচ্ছে না বলে দাবি করছে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড।

হঠাৎ করে যমুনার পানি বেড়ে যাওয়ায় দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার খোলাবাড়ি, নয়াপাড়া ও বরখাল এলাকায় নদী ভাঙ্গন দেখা দেয়। গত কয়েক দিনের ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে গেছে খোলাবাড়ি গ্রামের ১০টি বসতবাড়ি, সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও মসজিদসহ নয়াপাড়া এবং বরখাল গ্রামের কয়েক একর ফসলী জমি। এখনো হুমকির মুখে খোলাবাড়ি এবতেদায়ি ইসলামি মাদরাসাসহ যমুনা তীরের বিস্তৃর্ণ ফসলি জমি।

পৈত্রিক বসতভিটা হারিয়ে দিশেহারা ভাঙ্গনের শিকার পরিবারগুলো। বর্তমানে আশ্রয়হীন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন তারা। পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, নদীর মাঝে চর জেগে উঠায় গতি পরিবর্তন হয়েছে। এতে দেখা দিয়েছে ভাঙন। তবে বরাদ্দ না থাকায় এখনই ভাঙন রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া যাচ্ছে না। যমুনার ভাঙন রোধে দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে অবস্থার আরো অবনতি ঘটবে বলে আশঙ্কা স্থানীয়দের।

ফেসবুকে লাইক দিন