মোদির মতো ‘ধর্মান্ধ’দের জন্যই ভারত-পাকিস্তান আজ পৃথক: ইমরান খান

ইমান২৪.কম: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ‘ধর্মান্ধ’ আখ্যা দিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, মোদির মতো ধর্মান্ধদের কারণেই আজ ভারত-পাকিস্তান পৃথক রাষ্ট্র।

শুক্রবার (৮ মার্চ) পাকিস্তান নিয়ন্ত্রণাধীন থার মরুভূমি এলাকায় এক জনসভায় ইমরান খান এমন মন্তব্য করেন। পাকিস্তান ভিত্তিক জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যম দ্যা ডনের একটি প্রতিবেদনে এই তথ্য দেওয়া হয়।

ইমরান খান বলেন, ‘১৯৪৭ সালে দেশভাগের আগে মোদির মত মানুষদের জন্যই সাম্প্রদায়িক সংঘাতের সৃষ্টি হয়েছিল। তার মতো মানুষদের প্ররোচনার কারণেই এখানকার মুসলমানরা পৃথক রাষ্ট্র গঠনের দাবি তুলতে বাধ্য হয়েছিল। ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের অগ্রদূত মহাত্মা গান্ধী মোদির মতো ধর্মান্ধদের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েই অনশন করেছিলেন।

ইমরান খান আরও বলেন, আর এখন সেই দেশের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে জিততে মোদি ঘৃণা আর যুদ্ধের রাজনীতিকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছেন। মোদি সরকার ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদেরদের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। তবে আমাদের সরকার পাকিস্তানের হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করবে’।

পুলওয়ামা হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পুলওয়ামায় হামলার পর অপরাধীদের শনাক্তে পাকিস্তানের প্রস্তাবে ইতিবাচক সাড়ার পরিবর্তে কাশ্মীরের বাসিন্দাদের জীবন দুর্বিষহ করে ফেলেছে ভারত।

তিনি আরও বলেন, তারা কোনো ধরণের দুর্ভাগ্যজনক পদক্ষেপ নিলে সশস্ত্র বাহিনী এবং পাকিস্তানের জনগণ যথাযথ জবাব দেওয়ার জন্য সর্বাত্মক প্রস্তুত রয়েছে। আমরা দুর্বল নই, তবে এখন ভারতের বিরুদ্ধে নয় দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মনোযোগ দিতে চাই আমরা’।

এ সময় ভারতকে অতি উত্তেজিত হয়ে দুই পারমাণবিক শক্তিধর দেশকে যুদ্ধের দিকে ঠেলে না দেওয়ার পরামর্শ দেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

আরও পড়ুন: যারা গরু-ছাগলের মত বিক্রি হয় তারা দালাল: ড. কামাল

মেননের বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে তথাকথিত ধর্মান্ধরা আবার মাঠে নেমেছে: নাসিম

নৃত্যানুষ্ঠানের কারণে মসজিদের আযান বন্ধ করে দিলো স্থানীয় আ.লীগ নেতা (ভিডিও)

থলের বিড়ালকে বেশিদিন আটকে রাখতে পারেননি সিইসি, পাপ বাপকেও ছাড়ে না -রিজভী

মেনন-ইনুরা স্পর্ধার সীমা অতিক্রম করছে, এখনই তাদের লাগাম টেনে ধরতে হবে: ড. আ. ফ. ম. খালিদ হোসেন

ভারতীয় পাইলট অভিনন্দনের ছেলেকে লেখা পাকিস্তান সেনাবাহিনীর মর্মস্পর্শী চিঠি

ফেসবুকে লাইক দিন