মূলত যেজন্য হ’ত্যা করা হলো আবরার ফাহাদকে, নতুন তথ্য দিলো ডিএমপি

ইমান২৪.কম: ছাত্র শিবিরের কর্মী স’ন্দেহেই বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদকে পি’টিয়ে হ’ত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

সোমবার ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি। আবরার হ’ত্যার নেপথ্য কারণ হিসেবে কী খুঁ’জে পেল পুলিশ এমন প্রশ্নের জবাবে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আব’রার হ’ত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ১৯ আসামির মধ্যে চারজন আদালতে স্বীকারো’ক্তিমূলক জবা’নবন্দি দিয়েছেন।

আসামিদের জবান’বন্দিতে বলা হয়, মূলত শিবির সন্দেহেই আবরারকে পি’টিয়ে হ’ত্যা করা হয়েছে। আসামিদের জবানবন্দিতে হ’ত্যার কারণ হিসেবে এমনটিই বেরিয়ে এসেছে।’ তিনি বলেন, ‘আগামী নভেম্বরের শুরুর দিকেই আবরার হ’ত্যা মামলার তদন্ত শেষ হবে।

নভেম্বর মাসেই আদালতে মামলার চার্জশিট দাখিল করবে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।’ ঘটনার রাতে বুয়েটে পুলিশের কোনো টহল টিম বুয়েট ক্যাম্পাসে ছিল কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনার দিন রাত ৩টা পর্যন্ত বুয়েট এলাকায় পুলিশের একটি টিম টহল দেয়।

কিন্তু তারা এ সময় কোনো হইচইয়ের শব্দ পাইনি।’ প্রসঙ্গত ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় খু’ন হন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ।

ভারতের সঙ্গে চুক্তির বিরোধিতা করে শনিবার বিকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ফাহাদ। এর জের ধরে ৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে

তাকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে বে’ধড়ক পে’টানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃ’ত্যু হয়। পি’টুনির সময় নি’হত আবরারকে ‘শিবিরকর্মী’ হিসেবে চিহ্নিত করার চেষ্টা চালায় খু’নিরা।

ফেসবুকে লাইক দিন