মুসলমানদের ৪০০ প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিলো ফ্রান্স, পাস হচ্ছে নতুন মুসলিমবিরোধী বিল!

ফ্রান্সে বর্তমান ক্ষমতাসীন ম্যাক্রোঁ সরকারের একটি নির্দেশের অধীনে নানান আইনি অজুহাত দেখিয়ে মুসলমানদের ৪০০টি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে দেশটি৷ একই সঙ্গে সেখানে মুসলমানদের বিরুদ্ধে নতুন বিল পাস হতে যাচ্ছে।

সংবিধানের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন করে ফ্রান্সের স্থানীয় কর্তৃপক্ষ সরকারী নির্দেশনায় মুসলমানদের অন্তত ৪০০ টিরও বেশি দোকান ও স্থাপনা বন্ধ করে দিয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির “মিডিয়া পার্ট” নিউজ সাইট।

(বৃহস্পতিবার ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১) ফরাসি “মিডিয়া পার্ট” ওয়েবসাইট জানায়, স্থানীয় কর্তৃপক্ষ সরকারি আদেশে এবং মন্ত্রণালয়ের দিকনির্দেশনায় ১৮ হাজার পরিদর্শনকর্মি দেশজুড়ে ছড়িয়ে দেয়৷ এবং তাদেরকে যে কোনোভাবে আইনি অজুহাত খুঁজে, ‘বিচ্ছিন্নতাবাদের’ অভিযোগ আরোপ করে দেশের মুসলমানদের প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করার নির্দেশ দেয়৷

নিউজ সাইটটি প্যারিসের দক্ষিণে, ‘মৌলিন’ শহরে একটি রেস্তোঁরা বন্ধ করার আইনসঙ্গত কারণ না থাকা সত্ত্বেওও আইনের মারপ্যাঁচ দেখিয়ে বন্ধ করার নির্দেশনা সম্বলিত মন্ত্রণালয়ের একটি ইমেল প্রকাশ করেছে।

“মিডিয়া পার্ট” -এর বর্ণনা অনুযায়ী কমিটির অন্যতম পরিদর্শক (যার নাম উল্লেখ করা হয়নি) বলেছিলেন, ‘দোকানের মালিকদের চরমপন্থার সাথে কোনও যোগসূত্র না থাকলেও যে কোনও মূল্যে কিছু দোকান বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিলো৷’

মানবাধিকার পর্যবেক্ষকদের মতে, মন্ত্রকের নির্দেশনা অনুযায়ী কোনো অজুহাত খুঁজে মুসলিম দোকান বন্ধ করা জাতীয় সংবিধানের স্পষ্ট লঙ্ঘন৷

ফেসবুকে লাইক দিন