মুসলমানদের কবরস্থান থেকে কাদিয়ানিয়াদের লাশ তুলে নদীতে ভাসিয়ে দিতে হবে

ইমান২৪.কম: যারা কাদিয়ানিয়াদের মুসলিম ভাবে বা মুসলিম বলে সন্দেহ প্রকাশ করে তারাও মুসলিম নয়। তারা কাফের।

আর তাদের মসজিদকে মসজিদ বলা যাবে না ওটা মন্দির। তারা বাংলাদেশে মুসলিম হিসেবে নয় অন্য ধর্মলম্বীদের মতো থাকতে পারবে।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির ও বাংলাদেশ কওমি বোর্ডের সভাপতি আল্লামা শাহ আহমদ শফী এ কথা বলেছেন।

শনিবার দুপুরে যশোর ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত যশোর দড়াটানা মাদরাসার দাওরায়ে হাদিস (টাইটেল) ডিগ্রি অর্জনকারীদের দস্তরবন্দি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশের সকল বিভাগে সফর করছি। সফর শেষে ঢাকায় সব বিভাগের লোকজন নিয়ে হাজির হব এবং প্রধানমন্ত্রীকে বলব- তুমিও তো মুসলমান।

আমরা তোমাকে জানাতে এসেছি গোলাম আহমেদ কাদিয়ানিরা মুসলিম নয়।

যারা এদের মুসলিম ভাবে বা মুসলিম বলে সন্দেহ প্রকাশ করে তারাও মুসলিম নয়। তারা কাফের। এদের সাথে আত্মীয়তা করা যাবে না।

মুসলিমের কবরস্থানে তাদের দাফন হয়ে থাকলে লাশ তুলে নদীতে ভাসিয়ে দিতে হবে। তিনি আরো বলেন, আমাদের নবী হযরত মোহাম্মাদ (সা.) এর পর কোনো নবী আসবে না।

তিনি শেষ নবী। অথচ কাদিয়ানিরা আমাদের নবীকে শেষ নবী মানে না। গোলাম আহমেদ কাদিয়ানি নিজেকে শেষ নবী দাবি করে। ফলে তারা ও তাদের অনুসারীরা কাফের।

দড়াটানা মাদরাসার প্রিন্সিপাল মুফতি মুজিবুর রহমানের সভাপতিতে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কওমি বোর্ডের সহসভাপতি আব্দুর রহমান হাফেজি, মাওলানা মোস্তাক আহমেদ, মাওলানা নাসিরুল্লাহ প্রমুখ।

ফেসবুকে লাইক দিন