মানহাজিদের ঠেকাতে কঠোর পদক্ষেপ নিলো কওমি মাদ্রাসা

ইমান২৪.কম: মানহাজি ভাবাদর্শে বিশ্বাসী ছাত্রদের নতুন করে ভর্তির ক্ষেত্রে কঠোর অবস্থান নিয়েছে দেশের কওমি মাদ্রাসাগুলো। ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ মাদ্রাসাগুলোতে ভর্তির ক্ষেত্রে কোনও অবস্থাতেই রাজনৈতিক-অরাজনৈতিক এমনকি কোনও সংগঠনে সক্রিয় থাকলে ভর্তি না নেওয়ার কথা জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

ঢাকা ও ঢাকার বাইরের বিভিন্ন কওমি মাদ্রাসার শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত ২৫, ২৬ ও ২৭ মার্চ দেশের বিভিন্ন এলাকায় হেফাজতের বিক্ষোভ ও হরতাল কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে ঢাল, তলোয়ার, ঘোড়ার ব্যবহার করেছে কিছু শিক্ষার্থী। কওমি মাদ্রাসায় এই মতাদর্শের অনুসারীদের ‘মানহাজি’ নামে আখ্যা দেওয়া হয়। তারা বলছেন, মানহাজি মতাদর্শের ছাত্র-শিক্ষকরা প্রতিষ্ঠানের জন্য ক্ষতিকারক।

মাদ্রাসার শিক্ষকরা জানান, মানহাজিদের ঠেকাতে এবার কওমি মাদ্রাসায় ভর্তির ক্ষেত্রে কয়েকটি উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে দাওরায়ে হাদিস ক্লাসে ভর্তির ক্ষেত্রে অবারিত না করে আবাসিক আসন সাপেক্ষে ছাত্রভর্তি নেওয়া হবে। যে ছাত্ররা উগ্রপন্থী আচরণ দেখিয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কট্টরপন্থা অবলম্বন করেছে, তাদের ভর্তি নেওয়া হবে না। এছাড়া, এক মাদ্রাসা থেকে অন্য মাদ্রাসায় ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের আবশ্যিকভাবে ছাড়পত্র বা কোনও শিক্ষকের প্রত্যয়নপত্র জমা দিতে হবে।

গত ১৮ মে দেশের বৃহৎ কওমি প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে সাতটি শর্ত উল্লেখ করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য— প্রচলিত রাজনৈতিক, অরাজনৈতিক কোনও সংগঠন ও আইনশৃঙ্খলাবিরোধী কোনও কার্যক্রমের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকা যাবে না, কোনও ছাত্র ফেসবুকসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দিলে শাস্তিযোগ্য হবে, সর্বাবস্থায় মাদ্রাসা ক্যাম্পাসে অবস্থান করতে হবে। আগামী ৩০ মে থেকে হাটহাজারী মাদ্রাসায় ভর্তি শুরু হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন