মাত্র তিন দিনে ওজন কমানোর টিপস ! ! 🍄

আপনি কি অতি অল্প সময়ে নিজের ওজন কমাতে চান? সামনে কোন অনুষ্ঠান থাকলে অথবা নেহায়েতই ওজন খুব বেড়ে গেছে বলে দ্রুত ওজন নিয়ন্ত্রণে আনতে চান অনেকেই। নিজেকে ফিট রাখার জন্য পরিকল্পনার কোনো কমতি নেই।

তাহলে আপনার জন্য অল্প সময়ে ওজন কমাতে অনুসরণন করতে হবে নিচের পদ্ধতিটি।

ডায়েটের ক্ষেত্রে বেশি দিন বা অল্প দিন-দুই রকমেরই পরিকল্পনা করা য়ায়। অনেক সময় অল্প দিনে ক্রাশ ডায়েটেই বেশ ভালো ফলাফল পাওয়া যেতে দেখা যায়। জৈনক পুষ্টিবিদ বলেন, যারা দ্রুত ওজন কমাতে চান, তারা তিন দিনের ক্রাশ ডায়েট করতে পারেন। মাত্র তিন দিনে ক্রাশ ডায়েট করে ওজন কমিয়ে নিজেকে ঝরঝরে করে তোলা যায়।

এই পদ্ধতিতে তিন দিনের ক্রাশ ডায়েট করতে চাইলে প্রথমেই খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনার মনস্থির হবে । কঠোরভাবে খাদ্যাভ্যাসের নিয়ন্ত্রনের মধ্য দিয়েই পার করতে হবে তিন দিন। এই পদ্ধতিতে তিন দিনে চার থেকে সাড়ে চার কেজি ওজন কমতে পারে। তিন দিনের পর এই ডায়েট বন্ধ করে স্বাভাবিক খাওয়াদাওয়া করতে হবে। এরপর প্রয়োজন হলে আবার তিন দিনের এই ডায়েট অনুসরণ করা যাবে।

তিন দিনের ক্রাশ ডায়েটের খাদ্য তালিকাঃ

প্রথম দিন-
>শুরু থেকেই ডায়েটের দিন গণনা শুরু করুন। *প্রথম দিন সকালের নাস্তায় থাকবে-এক পিস বিস্কুট, ছোট সাইজের একটা আপেল ও চিনি-দুধ ছাড়া এক কাপ চা বা কফি। *সকাল ও দুপুরের মধ্যবর্তী সময়ে খাবেন একটা ছোট সাইজের খিরা বা পেয়ারা। *দুপুরে খাবেন এক টুকরো পাউরুটি, ৫০ গ্রাম ছোট মাছ, দুধ-চিনি ছাড়া এক কাপ চা অথবা কফি। *বিকেলে অল্প পরিমাণে সবজির স্যুপ। *আর রাতে ছোট এক টুকরা গোস্ত, ১টা ছোট আপেল ও অর্ধেক কলা।

দ্বিতীয় দিন-
>*দ্বিতীয় দিন সকালের নাস্তায় খাবেন একটা বিস্কুটের সঙ্গে একটা ডিম এবং ছোট আকারের একটা পেয়ারা। *সকাল ও দুপুরের মধ্যবর্তী সময়ে খাবেন একটা আপেল। *দিনের কাজ শেষে বিকেলের দিকে পান করবেন সবজির স্যুপ। *রাতের খাবারে খাবেন একটা গাজর, অর্ধেকটা কলা এবং ৫০ গ্রাম ছোট মাছ।

তৃতীয় দিন-
>এবার শেষ দিন। *তৃতীয় দিন সকালের নাস্তায় খাবেন দুই থেকে তিনটা বিস্কুট, একটা ছোট আপেল। *দ্বিতীয় দিনের মতো সকাল ও দুপুরের মধ্যবর্তী সময়ে খাবেন একটা আপেল। *শেষ দিন দুপুরের খাবারে রাখবেন পাউরুটির টোস্ট ও একটা সেদ্ধ ডিম। *প্রথম ও দ্বিতীয় দিনের মতো তৃতীয় দিনেও সন্ধ্যার আগে পান করুন সবজির স্যুপ। *আর ক্রাশ ডায়েটের শেষ দিন রাতে রাখুন ৫০ গ্রাম ছোট মাছ, অর্ধেক কলা ও সাধারণ স্যুপ।

ব্যায়াম-
>ক্রাশ ডায়েটের সময় খাবারের পাশাপাশি যতটুকু সম্ভব ব্যায়াম করুন। ব্যায়ামের ব্যাপারে নির্দিষ্ট কোনো নিয়ম বা পরিমান নেই । ক্রাশ ডায়েট চলাকালে প্রতিদিন ৩০ মিনিট হাঁটুন। আপনি কতটুকু ব্যায়াম করবেন, এই ব্যাপারে বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলে নেওয়া ভালো। এই ডায়েট অনুসরণ করার আগেও চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন