মাত্রাতিরিক্ত ক্যাফেইন থাকায় এনার্জি ড্রিংক বিক্রি নিষিদ্ধ করলো বিএসটিআই

ইমান২৪.কম: বাংলাদেশের বাজারে এনার্জি ড্রিংকের উৎপাদন, আমদানি ও বাজারজাতকরণ বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই)। বাজারে বিক্রীত এনার্জি ড্রিংকে মাত্রাতিরিক্ত ক্যাফেইন থাকায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিএসটিআইয়ের সভায় এনার্জি ড্রিংক শিরোনামে জাতীয় মান প্রণয়ন না করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয় এবং কার্বোনেটেড বেভারেজ ব্যতীত অন্য কোনো নামে পণ্য উৎপাদন, আমদানি ও বাজারজাতকরণের কোনো সুযোগ নেই বলে সিদ্ধান্ত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন বিএসটিআইয়ের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও পরিচালক (প্রাক্তন) আইএফএসটি, বিসিএসআইআর ও সফট ড্রিংক অ্যান্ড বেভারেজ শাখা কমিটির সভাপতি ড. মো. জহুরুল হক।

সভায় উপস্থিত এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানান, বাজারে বিক্রিত সফট ড্রিংকের ক্যাফেইনের মাত্রা প্রতি কেজিতে ১৪৫ এমজি থাকার কথা থাকলেও এনার্জি ড্রিংকে এ মাত্রা প্রতি কেজিতে ৩২০ এমজির বেশি পাওয়া গেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের নিয়ম অনুযায়ী যে কোনো পানীয়তে স্বাভাবিকভাবে থাকে ক্যাফেইনের মাত্রা ২০০ পর্যন্ত। কিন্তু দেশের ৩ ল্যাবরেটরির পরীক্ষাতেই ওই ৭টি এনার্জি ড্রিংকে ক্যাফেইনের মাত্রা প্রায় ৭০০ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, অতিরিক্ত ক্যাফেইন লিভারে চর্বি জমায়। হৃদপিণ্ডের রক্ত সরবরাহকারী ধমনীতে রক্ত চলাচল ধীর করে দেয়। এছাড়া বুক ধরফরানি, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন, উচ্চরক্তচাপ, ঘুমের ব্যঘাত, শরীরে অ্যাড্রেনালিন নামক হরমোনের মাত্রা বৃদ্ধি করে টানটান উত্তেজনা বৃদ্ধি ও কর্মক্ষমতা হ্রাস করে।

অতিরিক্ত ক্যাফেইন শরীরে প্রবেশের ফলে কোন ওষুধও কাজ করে না।

প্রসঙ্গত, গত বছর জাতীয় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ বাজার থেকে ৭টি কোম্পানির উৎপাদিত এনার্জি ড্রিংক সংগ্রহ করে ৩টি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষার জন্য পাঠায়। ল্যাবরেটরির জানায়, পরীক্ষায় ৭টি কোম্পানির পানীয়তে মাত্রাতিরিক্ত ক্যাফেইনের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

আরও পড়ুনঃ পাকিস্তান সীমান্তে ব্যাপক সংঘর্ষ, ৭ সেনা নিহত

এরদোগানকে পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে জড়িয়ে ধরে কেঁদে ফেললেন এক ফিলিস্তিনি

ফেসবুকে লাইক দিন