মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষায় সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালু করতে হবে: আল্লামা কাসেমী

ইমান২৪.কম: জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ-এর মহাসচিব শায়খুল হাদীস আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী আজ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে ভাষা দিবসের সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও রুহের মাগফিরাত কামনা করে এক বাণী দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ভাষার জন্য জীবন দিয়ে বিশ্ব দরবারে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিল ভাষা সৈনিকরা। তাঁদের এই ত্যাগ আজ আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত। কিন্তু নিজ দেশেই বিভিন্ন স্তরে বাংলা ভাষা আজও উপেক্ষিত। তাই ভাষার মর্যাদা রক্ষায় সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালু করতে হবে।

জমিয়ত মহাসচিব বলেন, অনন্য আত্মত্যাগ ও কোটি কোটি মানুষের প্রাণের এই বাংলা ভাষা এক ঐতিহাসিক অর্জন। এ অর্জন আজ আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত এবং বাংলা ভাষা বিশ্ব দরবারে স্বাধীন ভাষার মর্যাদা পেয়েছে।

কিন্তু নিজ দেশেই সেই ভাষার যথার্থ মর্যাদা পাচ্ছে না। নিছক বুলিতে পরিণত হয়েছে সর্বস্তরে বাংলা ভাষা প্রচলনের রাষ্ট্রীয় অঙ্গীকার। সুদীর্ঘ ছয় দশক পেরিয়ে গেলেও আধুনিকতার নামে চলা বাণিজ্যনির্ভর শিক্ষার দাপটে শিক্ষাঙ্গন থেকে বিদায় নিচ্ছে বাংলা ভাষা।

তিনি বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারির দিনটিকে ঘিরে কিছুদিন আবেগ-উচ্ছাসের বহিঃপ্রকাশ ঘটলেও সরকারি ও বেসরকারি অধিকাংশ জায়গায় মাতৃভাষাকে বিসর্জন দিয়ে অকারণেই চলছে ইংরেজি শব্দের ছড়াছড়ি। সংবিধান, আইন আর সরকারি নির্দেশনার পরেও সর্বেক্ষেত্রে রাষ্ট্রভাষা বাংলা ভাষা চালু হচ্ছে না। সর্বস্তরে মাতৃভাষা চালুর স্বপ্ন এখনো স্বপ্নই রয়ে গেছে। বরং কোন কোন ক্ষেত্রে মাতৃভাষাকে বিসর্জন দেয়া হচ্ছে।

জমিয়ত মহাসচিব বলেন, একদিকে ভাষার প্রতি অবহেলা চলছে, অন্যদিকে বাংলা ভাষা এখন ভয়াবহ আগ্রাসনের স্বীকার হচ্ছে নানাভাবে। দেশে অবাধে ভিনদেশী অপসংস্কৃতির প্রসারের ফলে সকল শ্রেণী পেশার মানুষ বিদেশী ভাষায় প্রভাবিত হয়ে পড়ছে।

এমনকি ছোট ছোট বাচ্চারা পর্যন্ত বাংলার বদলে হিন্দিতে কথা বলতে অভ্যস্ত হয়ে পড়ছে। কারণ রাষ্ট্রযন্ত্রের একটি শ্রেণী পরিকল্পিত ভাবে আকাশ সংস্কৃতিকে উন্মুক্ত করার মাধ্যমে ভারতীয় চ্যানেল গুলোকে একতরফা লাইসেন্স দিয়ে বাংলা ভাষার উপর আগ্রাসন চালাচ্ছে।

তিনি বলেন, আমাদের প্রিয় মাতৃভাষার প্রতি এসব আগ্রাসন এখনই এর প্রতিরোধ করা না হলে শহীদদের আত্মত্যাগ ও কোটি কোটি মানুষের প্রাণের ভাষা বাংলা হারিয়ে এক জগাখিচুড়ি ভাষাতে পরিণত হবে।

নজিরবিহীন রক্তে অর্জিত এই বিরল গৌরবকে আমরা উপেক্ষা করতে পারি না। এর পরিবর্তন আমাদের করতেই হবে। বাংলা ভাষার ভবিষ্যৎ অনেকটা নির্ভর করছে মাতৃভাষার প্রতি বাংলা ভাষাভাষীদের দৃষ্টিভঙ্গির ওপর।

আল্লামা কাসেমী বলেন, আমাদের হীনমন্যতামুক্ত হয়ে বাংলা ভাষার প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে গভীরভাবে মাতৃভাষা চর্চা করতে হবে। রাষ্ট্রীয়, সামাজিক ও সাংস্কৃতিকসহ সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রচলন করতে হবে। ভাষাকে আগ্রাসন মুক্ত রাখতে ভিনদেশী অপসংস্কৃতির প্রসার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। আমরা বিশ্বাস করি, যার যার অবস্থানে থেকে জাতীয় ও ব্যক্তি জীবনে ভাষার চর্চা অব্যাহত রাখলে বাংলা ভাষা তার প্রাপ্য গৌরবের আসনে অধিষ্ঠিত হবে।

আরও পড়ুন:  হামলার মহড়া দিতে গিয়ে ভারতের দুই বিমান ধংস

চুপ করে বসে থাকবো না, পাল্টা হামলা চালাব: ইমরান খান

হামলার জবাব দিতে কতটুকু প্রস্তুত ভারতের সেনাবাহিনী?

ভারত-পাকিস্তান সিমান্ত রণসাজে সজ্জিত, ৬০০ ট্যাংক পাঠালো পাকিস্তান

আবারও ব্যাপক সংঘর্ষ কাশ্মীরে, ভারতীয় বাহিনীর মেজর-সহ নিহত ৫

জাপানি নারীর ইসলাম গ্রহণের হৃদয়বিধারক ঘটনা ও পর্দার প্রতি সন্মান

ফেসবুকে লাইক দিন