ভোট গণনার উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ-ভাঙচুর

ইমান২৪.কম: ২৬৪-২১৪ ইলেকটোরাল ভোটে আটকে আছে যুক্তরাষ্ট্র। আপাতত দোদুল্যমান অবস্থায় রয়েছে মার্কিন নির্বাচন। কে যাবেন হোয়াইট হাউজে তা নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ।

বিভিন্ন রাজ্যে রিপাবলিকান ট্রাম্প ও ডেমোক্র্যাটিক বাইডেনের সমর্থকরা ভোট জয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে। অপরদিকে বিভিন্ন রাজ্যে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে বিক্ষোভ। পোর্টল্যান্ড, ওরেগনে প্রতিটি ভোট গণনার দাবিতে ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভ সহিংস হয়ে উঠেছে।

ন্যাশনাল গার্ড সক্রিয় থাকলেও বিক্ষোভ থেকে কিছু মানুষ বিচ্ছিন্ন হয়ে দোকানপাটে হামলা করে দরজা-জানালা ভাঙচুর করেছে। এ ঘটনাকে দাঙ্গা বলে উল্লেখ করেছে পুলিশ। পেনসিলভানিয়া, মিশিগান, জর্জিয়া মিশিগানে ভোট গণনা বন্ধের দাবিতে জনসমাবেশ করেছে ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচার শিবির।

সেখানেও বিক্ষোভ হয়েছে। মিনিয়াপোলিসে রাস্তা দখল করে দুই শতাধিক বিক্ষোভকারী। পুলিশ সেখান থেকে কয়েকজনকে আটক করেছে। ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তার ভোট বন্ধের আহ্বানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছিলেন বিক্ষোভকারীরা। মার্কিন গণমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, নিউইয়র্ক, ফিলাডেলফিয়া এবং শিকাগোতে বিক্ষোভ করছে জনগণ।

কেউ বাইডেনের পক্ষে রাস্তায় নেমে আনন্দ মিছিল করছিলেন। আবার কিছু দল ট্রাম্পের পক্ষে রাস্তায় নামেন। ডেট্রয়েটে ট্রাম্প সমর্থকরা ভোট গণনা কেন্দ্রের বাইরে জড়ো বিক্ষোভ করেছেন। ‘ভোট গণনা বন্ধ করো’- বলে স্লোগান দিচ্ছিলেন তারা। এ সময় বিভিন্ন দোকানের জানালা ভাঙচুর করা হয়।

অ্যারিজোনার ফিনিক্সেও বিক্ষোভে মেতেছেন সাধারণ জনগণ। গতকাল বুধবার বিকেলে একটি টুইট করেন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওই টুইটে পেনসিলভানিয়া, জর্জিয়া ও নর্থ ক্যারোলাইনার ভোট নিজেদের বলে দাবি করেন তিনি।

মার্কিন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ট্রাম্প প্রতারণামূলক টুইট করেছেন। মিশিগানের ভোটও নিজেদের বলে দাবি করেন ট্রাম্প। এও দাবি করেন, বিভিন্ন জায়গায় গোপনে ব্যাপক ব্যালট ফেলে দেওয়া হয়েছে। এমন হঠকারী মন্তব্যের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছে বেশ কয়েকটি রাজ্যে।

ফেসবুকে লাইক দিন