ভারতে নামাজের সময় মসজিদে হামলা করলো উগ্র হিন্দুরা!

ইমান২৪.কম: হিন্দুরা ভারতে মুসলিমদের উপর আগ্রাসন চালিয়ে যাচ্ছে নিয়মিত। এবার গুজরাটের এক মসজিদে সালাতের সময় হামলা করলো উগ্র হিন্দুরা।

ডকুমেন্টিং অপ্রেশন এগেইনস্ট মুসলিমস্ নামক বার্তাসংস্থা ভিডিও তথ্যের ভিত্তিতে জানিয়েছে, ভারতের গুজরাটে এক মসজিদে মুসল্লিরা সালাত আদায় করার সময় হামলা চালিয়েছে হিন্দুরা। এসময় মুশরিক হিন্দুরা মসজিদকে লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপ করেছে বলে জানায় বার্তাসংস্থাটি।

আরো পড়ুন>> সাত বছর আগেও তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে আট হাজার টাকা বেতনে চাকুরি করতেন। এখন তিনি অঢেল সম্পত্তির মালিক। ঢাকা, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার শহরে তার রয়েছে একাধিক ফ্ল্যাট, প্লটসহ স্থাবর-অস্থাবর বিপুল সম্পদ।

এসবই হয়েছে সাধারণ মানুষের শত শত কোটি টাকা আমানত লোপাট করে। তিনি হলেন-মাল্টি লেবেল মার্কেটিং (এমএলএম) কোম্পানি ইউনিপে টু ইউ’র চট্টগ্রাম জোনের শীর্ষ কর্মকর্তা রাশেদুল বারী ওরফে শিবলু (৩৯)। তার গ্রামের বাড়ি মিরসরাই উপজেলার সদরে।

বাবার নাম খোরশেদ আলম মেম্বার। নগর পুলিশ জানাচ্ছে, রাশেদুল একজন বড়মাপের প্রতারক। ইউনিপে টু ইউ’র প্রতারক হিসেবে টপ টেনে আছে তার নাম। প্রতারণার মামলায় সে একাধিবার জেল খেটেছে।

এখন সে জামিনে আছে। ইউনিপে টু ইউ’র এমডিসহ কারাবন্দি অন্যান্য কর্মকর্তাদের মামলা পরিচালনা করছেন রাশেদুল বারী। জানা গেছে, চট্টগ্রামের অসংখ্য গ্রাহকের শত কোটি লোপাট করে এখন ভিন্নধর্মী প্রতারণা শুরু করেছেন রাশেদুল বারী। এবার নগরের এক শিল্পপতির মালিকানাধীন কোটি টাকা দামের ফ্ল্যাট অবৈধভাবে দখল করে রেখেছেন রাশেদুল বারী।

অসুস্থতার কারণে গত কয়েকবছর ধরে ওই শিল্পপতি কানাডা অবস্থান করছেন। অভিযোগ আছে, দশমাস আগে নগরের খুলশি থানা কার্যালয়ের পাশে ওই শিল্পপতির মালিকানাধীন প্রায় সাত হাজার বর্গফুট আয়তনের বিলাসবহুল একটি ফ্ল্যাট একজন ব্রোকারের মাধ্যমে এক লাখ ৫ হাজার টাকা ভাড়ায় নেন রাশেদুল বারী।

অল্প কিছুদিনের মধ্যে অসুস্থতার কারণে বিদেশে অবস্থানরত শিল্পপতি এবং ফ্ল্যাট মালিকের সঙ্গে চুক্তিপত্র সম্পাদন করার আশ্বাস দিয়ে ফ্ল্যাটটিতে বসবাস শুরু করেন রাশেদুল বারী। মাসখানেক পর সিটি করপোরেশনের মাঠপর্যায়ের এক ট্যাক্স কর্মকর্তা হোল্ডিং ট্যাক্স চাইলে রাশেদুল বারীকে ফ্ল্যাটটির ট্যাক্স পরিশোধ করার জন্য বলা হয়। এসময় ওই কর্মকর্তাকে ডেকে ট্যাক্স পরিশোধ বাবদ এক লাখ টাকার একটি ব্যাংক চেক প্রদান করেন রাশেদুল।

কিন্তু এই প্রতারক ট্যাক্স পরিশোধ স্লিপে ফ্ল্যাটটির বর্তমান মালিকের নামের জায়গায় ওই শিল্পপতির পরিবর্তে নিজের নাম বসিয়ে দেন। বিষয়টি জেনে হকবাক হয়ে যান ফ্ল্যাট মালিক। এরপর দূতাবাসের মাধ্যমে ভাড়ানামা চুক্তিনামা সম্পাদনের জন্য রাশেদুল বারীর পাসপোর্ট চান ফ্ল্যাট মালিক।

কিন্তু এই প্রতারক পাসপোর্ট আজ দিচ্ছি কাল দিচ্ছি বলে সময়ক্ষেপণ করেন। এভাবে দশমাস চলে গেলেও ফ্ল্যাটের ভাড়া বাবদ ওই শিল্পপতিকে এক টাকা ভাড়াও পরিশোধ করেননি রাশেদুল। আর পাসপোর্ট কপি না দেওয়ায় রাশেদুলের সাথে ভাড়ানামা চুক্তিও করেননি ফ্ল্যাট মালিক।

ফেসবুকে লাইক দিন