ভারতের লোকদের ৫০ শতাংশের ভালো কোনো বাথরুম নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইমান২৪.কম: গরিব বাংলাদেশিরা না খেতে পেয়ে ভারতে অনুপ্রবেশ করছে বলে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বিতর্কিত মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ভারতের লোকদের ৫০ শতাংশের ভালো কোনো বাথরুম নেই। আর আমাদের ৯০ শতাংশ লোকই ভালো বাথরুম ব্যবহার করেন। মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. মোমেন বলেন, আমার দেশের শিক্ষিত লোকের চাকরির অভাব আছে। তবে অশিক্ষিত লোকের চাকরির অভাব নেই। আর ভারতের লক্ষাধিক লোক বাংলাদেশে চাকরি করে। তাই আমাদের ভারতে যাওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই।

তিনি বলেন, পৃথিবীতে অনেক জ্ঞানী লোক আছেন, দেখেও দেখেন না। জেনেও জানেন না। তবে তিনি (অমিত শাহ) যদি সেটা বলে থাকেন, আমি বলবো, বাংলাদেশ নিয়ে তার জ্ঞান সীমিত। বরং ক্ষেত্র বিশেষে বাংলাদেশ তাদের দেশ থেকে অনেক এগিয়ে। আমাদের দেশে এখন কেউ না খেয়ে মরে না।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশ নিয়ে এক বিতর্কিত মন্তব্য করেন।

তিনি দাবি করেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন সীমান্ত এলাকায় নিচুতলায় পৌঁছয়নি। যে কোনও পিছিয়ে-পড়া দেশে উন্নয়ন হতে শুরু করলে সেটা প্রথম কেন্দ্রে হয়। আর তার সুফল প্রথমে বড়লোকদের কাছে পৌঁছয়। গরিবদের কাছে নয়। এখন বাংলাদেশে সেই প্রক্রিয়া চলছে। ফলে গরিব মানুষ এখনও খেতে পাচ্ছে না। সে কারণেই অনুপ্রবেশ চলছে। আর যারা অনুপ্রবেশকারী, তারা যে শুধু বাংলাতেই থাকছে, তা নয়। তারা তো ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়ে পড়ছে। জম্মু-কাশ্মীর পর্যন্ত পৌঁছে যাচ্ছে।

হিন্দুত্ববাদী বিজেপির সাবেক এই সভাপতি অমিত এমন সময় বাংলাদেশিদের নিয়ে অনুপ্রবেশের বিতর্কি মন্তব্য করেছেন যখন পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন চলছে। যে নির্বাচনে তথাকথিত অনুপ্রবেশ একটা বড় ইস্যু। বিজেপি তথাকথিত এই অনুপ্রবেশ নিয়ে ভোটের রাজনীতেতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পশ্চিমবঙ্গের সবচেয়ে বড় সমস্যা অনুপ্রবেশ। পশ্চিমবঙ্গ ভারতের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সীমান্তবর্তী রাজ্য। এটা উত্তর-পূর্বের সঙ্গে সংযোগকারী রাজ্য। আবার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সাতটি দেশের সঙ্গে আমাদের দেশের সংযোগকারী এলাকা।

অমিত এর দাবি, পশিচমবঙ্গে রাজনৈতিক ‘কায়েমি স্বার্থের’ কারণে প্রথমে কমিউনিস্ট এবং পরে তৃণমূল অনুপ্রবেশকে মদত দিয়েছে।

তার দাবি মতে, আগামী ১০ বছর পর কলকাতার নাগরিকও অনুপ্রবেশ থেকে বাঁচতে পারবে না। এই অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিজেপি সরকার আসামে যা করেছে তেমনটাই পশ্চিমবঙ্গেও করবে।

ফেসবুকে লাইক দিন