ভারতের যু দ্ধ বিমান বিধ্বস্ত!

নিউজ ডেস্কঃ আবারও একটি ভারতীয় যুদ্ধবিমান বিধ্বস্তের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) আসামের তেজপুরে বিমানবাহিনীর সুখোই-৩ জেটটি বিধ্বস্ত হয়। এসময় সেখানে বিরাট বিস্ফোরণের

শব্দ সৃষ্টি হয়। আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, আসামের তেজপুরে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। এতে থাকা দুই পাইলট নিরাপদে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন। তবে কী কারণে এই বিমান বিধ্বস্তের ঘটনা ঘটেছে তা

এখনো জানা যায়নি। এর আগেও কোনো আঘাত ছাড়াই ভারতীয় কয়েকটি যুদ্ধবিমান বিধ্বস্তের ঘটনা ঘটেছে। গত মার্চ মাসে একটি মিগ ২৭ যুদ্ধবিমান রুটিন মহড়া দেয়ার সময় বিধ্বস্ত হয়। গত ফেব্রুয়ারিতেও মধ্য কাশ্মীরের বুদগামে একটি যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হয়। তখন দুই পাইলট নিহত হয়।

আরো পড়ুন>> কাশ্মির ইস্যুতে এবার ভারতীয় নাটক-সিনেমাও নিষিদ্ধ করল পাকিস্তান। একই ইস্যুতে এর আগে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক কমিয়ে আনার পাশাপাশি বাণিজ্যিক সম্পর্কও ছিন্ন

করে পাকিস্তান। বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের তথ্য উপদেষ্টা ফেরদৌস আশিক আওয়ান এ ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের সবাই কাশ্মিরের পাশে দাঁড়িয়েছে। কাশ্মীরের

জনগণের প্রতি পূর্ণ একাত্মতা পোষণ করে আমরা ভারতের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সে হিসেবে পাকিস্তানের সিনেমা হলগুলোতে এখন থেকে কোনো ভারতীয় সিনেমা চালানো হবে না।’ এর

আগে চলমান উত্তেজনার মধ্যে দিল্লিগামী সমঝোতা এক্সপ্রেস স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দিয়েছে ইসলামাবাদ। শেখ রশিদ আহমদ বলেন, ‘আমি যতদিন রেলমন্ত্রী থাকব, ততদিন সমঝোতা এক্সপ্রেস চলতে পারবে না। এই ট্রেনটি

সপ্তাহে দুদিন চলত। এখন সমঝোতা এক্সপ্রেস বন্ধ থাকবে। ঈদের পর ভারতের অন্যান্য ট্রেনও বন্ধ করে দেয়া হবে।’ এর আগে বুধবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে শীর্ষ নিরাপত্তা কমিটির বৈঠকে কাশ্মীরের

বিশেষ মর্যাদা বাতিলে বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করা হয়। বৈঠকে পাক-ভারত দ্বিপক্ষীয় চুক্তি নিয়ে পর্যালোচনা করার সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়া বিষয়টি জাতিসংঘে উত্থাপন ও আগামী ১৪ আগস্ট কাশ্মীরিদের সঙ্গে

সংহতি জানিয়ে আসন্ন স্বাধীনতা দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এর আগে সোমবার (৫ আগস্ট) সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপ করে ভারতের অধীনে থাকা জম্মু-কাশ্মীরকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার ঘোষণা

দেয় ক্ষমতাসীন বিজেপি। রয়টার্স জানায়, এখন পর্যন্ত জম্মু-কাশ্মীরের ৩০০ রাজনৈতিক নেতাকে বন্দি করা হয়েছে। আটকদের মধ্যে আছেন রাজ্যটির দুই সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি এবং ওমর আবদুল্লাহও।

কাশ্মীরের সবগুলো রাজনৈতিক, ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক দল ও গোষ্ঠীর জোট হুরিয়াত কনফারেন্সের চেয়ারম্যান মিরওয়াইজ ওমর ফারুককে কয়েক ঘণ্টার জন্য গ্রেফতার করা হলেও পরবর্তীতে তাকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। উল্লেখ্য, গত রবিবার (৪ আগস্ট) থেকে কাশ্মীরে সামরিক পরিস্থিতি জারি করা হয়েছে।

নিউজ১২/নি

ফেসবুকে লাইক দিন