ভারতের কাছে শান্তি স্থাপনের সুযোগ চাইলেন ইমরান খান

ইমান২৪.কম: কাশ্মীরের পুলওয়ামায় হামলার জেরে এইমুহূর্তে প্রতিবেশী দুই দেশ ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। দুই দেশটির অনেকে আশঙ্কা করছেন যেকোন মুহূর্তে বাধতে পারে যুদ্ধ। তবে রবিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ভারতের কাছে শান্তি স্থাপনের সুযোগ চাইলেন। খবর এনডিটিভির।

শনিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দিকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন, ‘পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার অভিযোগ যাদের বিরুদ্ধে, পারলে তাদের শাস্তি দিন’।

তারই প্রেক্ষিতে রবিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী জবাব দেন। তিনি বলেন, শান্তি স্থাপনের সুযোগ দিন।

এনিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী দপ্তর একটি বিবৃতি জারি করেছে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা পিটিআই। তাতে লেখা হয়েছে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী এখনও নিজের বক্তব্যে অনড়। দিল্লি যদি পুলওয়ামার সঙ্গে পাকিস্তানের যোগ প্রমাণ করতে পারে তাহলে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে ইসলামাবাদ।

শনিবার রাজস্থানের টঙ্কে একটি সভায় ভাষণ দিতে গিয়ে গত বছর ইমরান খান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর তাঁকে শুভেচ্ছা জানানোর মুহূর্তটি স্মরণ করেন নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, ‘আমি তাঁকে(ইমরান খান) বলেছিলাম, এর আগে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বহুবার যুদ্ধ হয়েছে। পাকিস্তান একবারও যুদ্ধ করে কিছু পায়নি। প্রতিবার জিতেছে ভারত।’

মোদী বলেন, আমি ওঁকে বলেছিলাম, দারিদ্র্য এবং অশিক্ষার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করুন। উনি আমাকে জবাবে বলেছিলেন, ‘মোদীজি, আমি পাঠানের ছেলে। আমি সত্যি কথা বলি এবং সত্যি কাজ করি’। আজ তো সময় এসে গিয়েছে যে কথাগুলো তিনি বলেছিলেন, তা রাখার। আমিও দেখব, তিনি এখন তাঁর কথাগুলো রাখতে পারেন কি না।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় ৪০ জনের বেশি সিআরপিএফ সেনা জঙ্গি হামলায় মারা যান। পাক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ এই ঘটনার দায় স্বীকার করার পরই ভারত আন্তর্জাতিক মহল থেকে পাকিস্তানের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ইমরান খান বলেন, ভারত কোনও আক্রমণ চালালে তা প্রতিহত করা হবে।

যুদ্ধ কোনো পিকনিক নয়: মোদিকে ভারতের সাবেক গোয়েন্দা প্রধান

যুদ্ধ কোনো পিকনিক নয়: মোদিকে ভারতের সাবেক গোয়েন্দা প্রধান

ইমান২৪.কম: ভারতের সাবেক গোয়েন্দা প্রধান এ. এস. দৌলত বলেছেন, যুদ্ধ কোনো পিকনিক নয়। একইসঙ্গে তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সম্ভাব্য যুদ্ধের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি যুদ্ধের চেয়ে জোরদার কূটনৈতিক তৎপরতার পক্ষেই যুক্তি তুলে ধরেছেন।

এ. এস. দৌলতের এ মতামত কংগ্রেস সমর্থিত পত্রিকা ন্যাশনাল হেরাল্ডে প্রকাশিত হয়েছে। একই ধরনের বক্তব্য দিয়েছেন ভারতের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি. চিদাম্বরম। তিনি বলেছেন, যে আত্মঘাতী ব্যক্তির হামলায় ৪০ জন জওয়ান নিহত হয়েছে সে ভারতের নাগরিক। গোলযোগপূর্ণ কাশ্মিরের জনগণের হৃদয় ও মন জয় করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে পরামর্শ দিয়েছেন এস দৌলত।

এ. এস দৌলত বলেছেন, তিনি মনে করেন না যুদ্ধ আসন্ন। সাবেক এ গোয়েন্দা প্রধান বলেন, “প্রধানমন্ত্রী মোদি সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের জন্য উন্মুক্ত সুযোগ দিয়েছেন কিন্তু আজকের দিনে যুদ্ধ হচ্ছে নোংরা কিছু।

আমি নিশ্চিত যে, যুদ্ধের বাইরে অন্য পথ খোলা আছে। মুম্বাই হামলার পর যুদ্ধের বিষয়টি এর চেয়েও বেশি জোরোশোরে উচ্চারিত হয়েছিল কিন্তু ড. মনমোহন সিং যুদ্ধ যান নি। ফলে নরেন্দ্র মোদিকে তার মতামত পুনর্বিবেচনা করতে হবে। শীর্ষ পর্যায়ের লোকজনকে পরিণতি নিয়ে ভাবতে হয়। যুদ্ধ কোনো পিকনিক নয়।

আরও পড়ুন:  পাক-ভারত সীমান্তে গোলাগুলি : মর্টার শেল ও ভারী গোলাবর্ষণ

চুপ করে বসে থাকবো না, পাল্টা হামলা চালাব: ইমরান খান

যেভাবে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত চকবাজারে, দেখুন সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজে

৫০টি পারমাণবিক বোমা একসঙ্গে মারতে হবে: পারভেজ মোশাররফ

ভারতে বিমান বাহিনীর ঘাঁটিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, ৩ শতাধিক গাড়ি পুড়ে ছাই

যুদ্ধক্ষেত্রে ভারতকে উপযুক্ত জবাব দেবে পাক সেনাবাহিনী: জেনারেল আসিফ গফুর

ফেসবুকে লাইক দিন