বিমানে কলকাতা যাওয়া-আসা মাত্র ৭ হাজার টাকা

আগামী ১ অগাস্ট থেকেই ঢাকা-কলকাতা রুটে ফ্লাইট চালুর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স।মঙ্গলবার ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন করে ভারতের বেসরকারি বিমান সংস্থাটি জানিয়েছে, সপ্তাহের প্রতিদিনই এই রুটে একটি করে ফ্লাইট চালাবে তারা।

বাংলাদেশে কার্যক্রমের শুরুতে ঢাকা-কলকাতা ‘প্রমোশনাল’ ভাড়া ধরা হয়েছে ৫ হাজার ৩১ টাকা। আসা-যাওয়া বাবদ একজন যাত্রীকে গুণতে হবে ৭ হাজার ৮৫ টাকা।তবে পরবর্তীতে ভাড়ার হার পরিবর্তন হতে পারে বলে জানিয়েছেন ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের চিফ স্ট্যাটেজিক অফিসার উইলিয়াম বোল্টার।

এখন বাংলাদেশ থেকে ঢাকা-কলকাতা রুটে রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের রিটার্ন টিকেটের ন্যূনতম ভাড়া সাড়ে ১২ হাজার টাকা। বেসরকারি ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স সাড়ে ১০ হাজার টাকা, নভোএয়ার ৯ হাজার ৯৯৯ টাকা, রিজেন্ট এয়ারওয়েজ ১০ হাজার টাকা করে ভাড়া রাখছে আসা-যাওয়ায়।

স্বল্প ভাড়ায় ইন্ডিগোর বাংলাদেশে যাত্রা শুরুর খবরে কলকাতাগামী যাত্রীদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ তৈরি হয়। এর মধ্যে মঙ্গলবার বিকালে ঢাকার একটি রেস্তোরাঁয় সংবাদ সম্মেলন করে বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরুর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয় ইন্ডিগো।

উইলিয়াম বোল্টার সাংবাদিকদের বলেন, আগামী ১ অগাস্ট থেকে ঢাকা কলকাতা রুটে সপ্তাহে প্রতিদিন একটি করে ফ্লাইট পরিচালনা করবেন তারা।তাদের ফ্লাইট প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা ১০ মিনিটে ঢাকা ছেড়ে যাবে এবং রাত ৮টায় কলকাতা পৌঁছাবে। অন্য ফ্লাইটটি কলকাতা থেকে বিকাল ৪টা ৪০ মিনিটে যাত্রা করে সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে ঢাকায় পৌঁছাবে।

বোল্টার বলেন, “প্রমোশনাল ভাড়া পড়ছে ৫ হাজার ৩১ টাকা। রিটার্ন ফ্লাইটের ভাড়া ৭ হাজার ৮৫ টাকা। পরবর্তীতে চাহিদা অনুযায়ী ভাড়ার পরিবর্তন হতে পারে।”আসন সংখ্যার প্রায় অর্ধেক প্রমোশনাল ভাড়ায় পাওয়া যাবে বলে জানান তিনি।

ইন্ডিগোর ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইনে টিকেট বুকিং দেওয়া যাবে। ট্রাভেল এজেন্টদের কাছ থেকেও কেনা যাবে টিকেট।ইন্ডিগোর যাত্রীরা লাগেজে ২০ কেজি ও হাতে ৭ কেজি পর্যন্ত মালামাল বহন করতে পারবেন।নিজেদের বহরের এ ৩২০ মডেলের এয়ারক্রাফটটি ঢাকা-কলকাতা রুটে যাত্রী পরিবহনে ব্যবহার করা হবে বলে জানান ইন্ডিগোর চিফ স্ট্রাটেজিক অফিসার।

ঢাকায় ফ্লাইট চালুর মধ্য দিয়ে নবম আন্তর্জাতিক গন্তব্যে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠিত ইন্ডিগো। ২০১৮ সালে আটটি আন্তর্জাতিক ও ৪২টি অভ্যন্তরীণ গন্তব্যে তারা ৪ কোটি ৬০ লাখ মানুষকে সেবা দিয়েছে, যা এশিয়ার মধ্যে সপ্তম বলে এয়ারলাইন্সটির এক বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে।

ঢাকার সঙ্গে ভারতের অন্যান্য শহর এবং কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম থেকেও ফ্লাইট চালুর পরিকল্পনার কথা জানান উইলিয়াম বোল্টার। তিনি বলেন, “আমরা চাই, যাত্রীদের আস্থা ও ভালবাসায় নিজেদের যুক্ত রাখতে। ভারতে এক যুগ সেবা দেওয়ার পর বাংলাদেশে স্বল্পতম খরচে ফ্লাইট পরিচালনার মাধ্যমে দুই দেশের আঞ্চলিক যোগাযোগ বৃদ্ধি পাক, সেটাই আমাদের উদ্দেশ্য।

“ভবিষ্যতে চাহিদা বিবেচনা করে দুই দেশের সরকার চাইলে প্রয়োজনে ঢাকা থেকে ভারতের অন্যান্য গন্তব্যেও ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। চাহিদা থাকলে আগামী ৪/৫ বছর পর ভারত থেকে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামেও ফ্লাইট পরিচালনা করা যাবে।”

ফেসবুকে লাইক দিন