বিএনপি চেয়ারপরসন খালেদা জিয়ার জামিন হয়নি

মিসেস খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের জামিনের আবেদনের ওপর শুনানির পর হাইকোর্ট জানিয়েছে, বিচারিক আদালত থেকে রায়ের নথিপত্র পাওয়ার পর তারা সিদ্ধান্ত দেবেন। আদালতের কাছে সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র দেওয়ার জন্য রাষ্ট্রপক্ষকে ১৫ কার্যদিবস সময় দেওয়া হয়েছে। (গতকাল -রবিবার)

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ই ফ্রেবুয়ারি ৫ বছরের কারাদণ্ড হয় মিসেস খালেদা জিয়ার। গত সোমবার ঐ মামলার রায়ের বিরুদ্ধে এবং তার জামিনের পক্ষে হাইকোর্টে আপীল করেন মিসেস খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

মিসেস খালেদা জিয়ার আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বয়সের কারণে মিসেস খালেদা জিয়ার চিকিৎসার প্রয়োজন তুলে ধরেন এবং বলেন, তিন বারের মত নির্বাচিত একজন প্রধানমন্ত্রী জামিন পাওয়ার যোগ্য।

অন্যদিকে আজ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারাগারে থাকা বিএনপির চেয়ারপরসন মিসেস খালেদা জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আগামী ১৩ মার্চ পর্যন্ত জামিন পেয়েছেন। একইসঙ্গে ১৩ ও ১৪ মার্চ মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের দিন ধার্য করে হয়। রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান এ আদেশ দেন।

২০১১ সালের ৮ আগস্ট খালেদা জিয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা দায়ের করে দুদক।  ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুদক।

ফেসবুকে লাইক দিন