বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট

ইমান২৪.কম: বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একটি রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ আদালত এ আদেশ দেন। বুধবার (৩১ অক্টোবর) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর সমন্বয়ে গঠিতে বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এ আদেশের ফলে তারেক রহমান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন রিটকারীর আইনজীবী।

এদিকে, বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা বলছেন, তারেক রহমানকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখতেই এই রিট। গেল ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট্র দুনীর্তি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারর্সন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা হওয়ার পর তারেক রহমানকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেয় দলটি। আর এ লক্ষে সংশোধনী আনে নিজেদের গঠনতন্ত্রে। বিএনপির গঠনতন্ত্রের ৭ এর গ ধারায় বলা ছিল দণ্ডিত, দুর্নীতিপরায়ন কিংবা দেউলিয়া কোনো ব্যক্তি দলের কোনো দায়িত্বে থাকতে পারবেন না। নির্বাচনের জন্যও অযোগ্য বিবেচিত হবেন তারা।

কিন্তু তারেক রহমানকে চেয়ারম্যান করতে দলের কোনো কাউন্সিল ছাড়াই গঠনতন্ত্রে সংশোধনী আনে দলটি। আর এই বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে আদালতে যান মোজাম্মেল হোসেন নামে এক ব্যক্তি। রিটকারীর আইনজীবী বলছেন, গঠনতন্ত্রের সংশোধনীর বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা চেয়েছিলেন তারা। তিনি আরও বলেন, মোহাম্মদ মোজাম্মেল হোসেন বিএনপির একজন কর্মী রিট পিটিশন দায়ের করেছিলেন। বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র যেখানে ৭ম অনুচ্ছেদ বাতিল করে দেয়া হয়েছে। সেই সংশোধিত গঠনতন্ত্র যেন গ্রহণ করা না হয়।

এই গঠনতন্ত্র না নেয়ার জন্যে মাননীয় আদালতে আমি পিটিশনারের পক্ষে আবেদন করি। আদালত সন্তুষ্ট হয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন। এদিকে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা বলছেন, তারেক রহমানকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে এবং বিএনপি দুর্বল করতেই আদালতে এমন রিট করা হয়েছিল। তারা আরো বলছেন, যত ষড়যন্ত্রই হোক বিএনপিকে রাজনীতির মাঠ থেকে দূরে রাখা যাবে না।

আরও পড়ুন: ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের কাছে ক্ষমা চাইতে মাসুদা ভাট্টিকে লিগ্যাল নোটিশ

ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে গ্রেফতারে ড. কামালের উদ্বেগ, আইনি লড়াইয়ের ঘোষণা

ফেসবুকে লাইক দিন