বাচ্চার বিছানায় প্রস্রাবের অভ্যাস ত্যাগ করাবেন যেভাবে

শিশুদের বিছানায় প্রস্রাবের অভ্যাস খুবই যন্ত্রণাদায়ক। বিশেষ করে শীতে ও বৃষ্টির দিনে আপনার শিশু যদি প্রতি রাতেই ঘুমের মধ্যে বিছানায় প্রস্রাব করে তবে বিপাকে পড়েন মায়েরা।নিজ সন্তানের এ বিব্রতকর সমস্যা নিয়ে ভুগেননি এরকম মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের ওহায়োর ক্লিভলেন্ড ক্লিনিকের একদল ডাক্তারের নির্দেশনা দেখে জেনে নিন কীভাবে আপনার সন্তানের বিছানায় প্রস্রাব করার অভ্যাস ত্যাগ করাবেন।

তরল জাতীয় খাবার: রাতের খাবারের পরপরই তরল জাতীয় খাবার খাওয়ানোর অভ্যাস বন্ধ করুন। দিনের কোন সময় পানি কিংবা তরল জাতীয় খাবার খাবে সেটার জন্য একটি রুটিন করে দিন।

প্রস্রাব: ঘুমানোর সময় শিশুকে উঠিয়ে একবার টয়লেটে নিয়ে প্রস্রাব করিয়ে আনতে হবে। তবে সবসময় এটা করবেন না তাহলে আপনার বাচ্চা নিদ্রাহীনতা ও হতাশায় ভুগবে।

নির্দিষ্ট সময়: শিশুদের বাথরুমে যাওয়ার সময় নির্দিষ্ট করে দিতে হবে। প্রতি দুই তিন ঘন্টা পর যাতে বাথরুমে যায় সেটা খেয়াল রাখুন।

জ্যুস ও মিষ্টি: রাতের বেলা ক্যাফেইন জাতীয় পানীয় যেমন চকোলেট মিল্ক এবং কোকো খাওয়ানো বন্ধ করুন। এটাতেও কাজ না করলে সাইট্রাস জাতীয় জ্যুস ও মিষ্টি খাওয়ানো বন্ধ করুন।

কোষ্ঠকাঠিন্য: কোষ্ঠকাঠিন্য আছে কীনা সেটা যাচাই করার জন্য ডাক্তারের শরনাপন্ন হোন। অনেক সময় কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে বিছানায় প্রস্রাব করার অভ্যাস তৈরি হতে পারে।

পছন্দনীয় পুরস্কার: সপ্তাহে কোন কোন রাতে শিশু বিছানায় প্রস্রাব করেনি সেদিনগুলো শিশু নিজে লাল কালি দিয়ে ক্যালেন্ডারে দাগ দেবে এবং বিছানায় প্রস্রাব না করার জন্য তাকে বিভিন্ন ধরনের পছন্দনীয় পুরস্কার দিতে পারেন।

দারুচিনি:  আপনার শিশুকে আস্ত দারুচিনি চিবিয়ে খেতে দিতে পারেন। সকালের নাস্তায় দারুচিনি গুঁড়োর সাথে চিনি মিশিয়ে খাবার যেমন- ব্রেড, বাটার টোস্টে মিশিয়ে দিন। নিম্নাঙ্গের আশেপাশে কুসুম গরম অলিভ অয়েল মাখিয়ে নিতে পারেন। এতেও উপকার পাওয়া যেতে পারে।

যাই হোক না কেন কখনোই শিশুকে এ অভ্যাসের জন্য শাস্তি দিবেন না। শাস্তি দিয়ে সমস্যার সমাধান করা যাবে না। যুগা্তর

ফেসবুকে লাইক দিন