‘বাংলাদেশ থেকে প্রতিদিন হাজার কোটি টাকা চুরি হয়’

সাপ্তাহিক প্রতিকার সম্পাদক গোলাম মোর্তূজা বলেছেন, বাংলদেশ থেকে প্রতিদিন হাজার কােটি টাকা চুরি হয়ে যায়, যা ১৬ কোটি মানুষের টাকা। বৃহস্পতিবার সংসদে প্রধানমন্ত্রীর কথার প্রেক্ষিতে তিনি একথা বলেন।

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, কথায় কথায় তারা বলে ক্লাস করবে না। ক্লাসে তালা দেয়, ক্ষতিগ্রস্ত কারা হবে? আমরা সেশনজট দূর করেছি। এদের কারণে এখন আবারও সেই সেশনজট। ১৫ টাকা সিট ভাড়া আর ৩৮ টাকা খাবার, কোথায় আছে পৃথিবীর। আজ নতুন নতুন হল বানিয়েছি। ১৫ টাকা সিট ভাড়া আর ৩৮টাকায় খাবার খেয়ে তারা লাফালাফি করে। তাহলে সিটভাড়া আর খাবারে বাজারদর যা রয়েছে, তাদের তা দিতে হবে। সেটা তারা দিক।

প্রধানমন্ত্রীর এই কথায় গোলাম মোর্তূজা তার ফেসবুকে লিখেছেন, ৩৮ আর ১৫ টাকার জীবন! টাকাটা কার?, সোনালী ব্যাংকের ৪ হাজার কোটি, বেসিক ব্যাংকের সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকা কার, কে -কারা চুরি করল? রিজার্ভ, শেয়ার বাজারের টাকা কার, কে -কারা চুরি করল? লক্ষ কোটি খেলাপি ঋণের টাকা কার, কে -কারা নিয়ে ফেরত দিল না? আপনারাই বলেন ‘পবিত্র সংবিধান’ আর সেই ‘পবিত্র সংবিধান’ অনুযায়ী সব টাকার মালিক ১৬ কোটি মানুষ। নায্যতা থাকলে ১৫ টাকায় শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত বাসস্থান থাকতো, আর ৩৮ টাকায় ৮০০ টাকার মানের খাবার দেওয়া হতো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বছরের বাজেট ৭৫০ কোটি টাকা, এদেশ থেকে প্রতিদিন চুরি হয়ে যায় হাজার কোটি টাকা,১৬ কোটি মানুষের টাকা।

ফেসবুকে লাইক দিন