বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ছিল, ভবিষ্যতেও থাকবে: আল্লামা শফী

ইমান২৪.কম: রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিয়ে ধর্মনিরপেক্ষতা লিখার দাবিতে “মাইনরিটি সংগ্রাম পরিষদে”র সভাপতি আশোক কুমার সাহা পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আশোক কুমার ঘোষের লিগ্যাল নোটিশ পাঠানোর ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

তিনি বলেন, পঁচানব্বই শতাংশ মুসলমানের বাংলাদেশে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম অতীতেও ছিল ভবিষ্যতেও বহাল থাকবে। এটি একটি মীমাংসিত বিষয়। বিগত সময়ে এটি নিয়ে অনেক আন্দোলন-সংগ্রাম করেছিলেন দেশের উলামায়ে কেরাম ও তওহিদী জনতা। আদালতে এর সমাধানও হয়েছিল।

এতদিন পর “মাইনরিটি সংগ্রাম পরিষদ”র সভাপতি আশোক কুমার সাহা এমন অবান্তর দাবি দেশের পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করার নতুন চক্রান্ত বলেই প্রতীয়মান হচ্ছে। এদের ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

বুধবার (১৯ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি আহ্বান জানান। সরকারের প্রতি ইঙ্গিত করে আল্লামা শফী বলেন, মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে কোনো আইন বাস্তবায়ন করবেন না। এ দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণ মুসলিম, দেশ পরিচালনার ক্ষেত্রে এসব বিষয়ে খেয়াল রাখা প্রয়োজন।

যারা ইসলামের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে উঠেপড়ে লেগেছে তাদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করার অনুরোধ জানাচ্ছি। তিনি বলেন, বাংলাদেশে ইসলাম ছাড়া অন্যান্য ধর্মের অনুসারীদের ধর্মচর্চায় কখনো মুসলমানরা বাধাগ্রস্ত করে না।

সুতরাং দেশের এই সাম্প্রদায়িক বন্ধন বজায় রাখতে এবং দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা এড়াতে রাষ্ট্রধর্ম ইসলামই বহাল থাকা জরুরী। আল্লামা শফী দেশের জনগণের কাছে দুআ চেয়ে বলেন, ইসলামকে টিকিয়ে রাখতে ফরজের সাথে সাথে নফল ইবাদত বাড়িয়ে দিতে হবে। ইসলামের বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্রের মোকাবিলা করতে সবাইকে সর্বক্ষণ প্রস্তুত থাকতে হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন