প্রয়োজনের চেয়ে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা অনেক বেশী : অর্থমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত স্বীকার করেছেন, প্রয়োজনের তুলনায় দেশে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে। আমি মনে করি, এ খাতে ওই সকল ব্যাংকগুলোকে একত্রীকরণ করা উচিত।

আজ ২৪ অক্টোবর বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

আবুল মাল বলেন, ভবিষ্যতে ব্যাংক ও আর্থিক খাতে সংস্কারের ওপর গুরুত্ব দিয়ে প্রতিবেদন তৈরির পরিকল্পনা করছি। আমার প্রতিবেদনটিতে মূলত ব্যাংকিং সংস্কারের ওপর ফোকাস করবে। তবে এটি সমগ্র আর্থিক অবস্থা তুলে ধরবে। প্রতিবেদনটি গণমাধ্যমের মাধ্যমে সকলের সামনে উপস্থাপন করা হবে।

এদিকে যথাযথ প্রয়োজন ও কর্মক্ষমতা মূল্যায়ন না করেই সরকার অনেক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে ব্যবসা করতে অনুমতি দেয়ায় অর্থনীতিবিদ ও বিশেষজ্ঞরা এর ব্যাপক সমালোচনা করেন। তারা ব্যাংকিং খাতে অনিয়ম, দুর্নীতি ও বিশৃঙ্খলার জন্য সরকারের এরকম মনোভাবকে দায়ী করেন।

কিন্তু অর্থমন্ত্রী বরাবরই এই ধরনের মতামতের সাথে দ্বিমত পোষণ করেছেন। বরং, আরো ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে ব্যবসার অনুমতি প্রদানে তিনি সরকারের পক্ষে ছিলেন।

আরও পড়ুন: 

রাতের আঁধারে শাড়ি-লুঙ্গি-মিষ্টি নিয়ে বাড়ি বাড়ি আ.লীগের এমপি জগলুল

কওমি সনদের স্বীকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা নয়, হবে শুকরিয়া মাহফিল

জামায়াতে ইসলামীকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার কোনো আইন নেই: ইসি সচিব

ফেসবুকে লাইক দিন