প্রিয় নবীজির কথা স্মরণ করে আনসারীর জানাজায় যেতে পারিনি: ব্যারিস্টার সুমন

ইমান২৪.কম: আল্লামা আনসারীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যপক আলোচিত এবং প্রশংসিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আদালতের সাবেক ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

শনিবার সাড়ে বিকেল ৫টার দিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভেরিফায়েড পেজে লাইভে এসে দেশের এ প্রসিদ্ধ বক্তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেন তিনি। তবে এসময় করোনভাইরাসের এ কঠিন সময়ে জানাজায় লাখো মানুষের উপস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন ব্যারিস্টার সুমন।

ব্যরিস্টার ‍সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেছেন, ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার নাসির নগরের কীর্তি সন্তান মাওলানা জোবায়ের রহমান (আহমদ) আনসারী সাহেবের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছি। আমি আমার হবিগঞ্জের চুনারুঘাট থেকে তার জানাজায় উপস্থিত হওয়ার ইচ্ছা ছিলো।

কিন্তু মহামারীর সময়ে যখন বাংলাদেশ লকডাউনে তখন আমার প্রিয় নবীজির একটা কথা আমার স্মরণে হয়ে যায়। তিনি বলেছেন, যখন কোনো এলাকায় মহামারী দেখা দেয় তখন তোমরা এক এলাকা থেকে আরেক এলাকায় যেয়ো না। যেখানে আছ সেখানেই থাকো।

সুমন বলেন, এখন সারাদেশে লকডাউন চলছে। কিন্তু খারাপ লাগছে যখন দেখলাম বিভিন্ন জায়গা থেকে লাখ লাখ মানুষ জানাজায় অংশ নিয়েছে। মক্কা-মদিনায় যেখানে সব কিছু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশে তো সব বন্ধ করা হয়নি, সীমিত করা হয়েছে।

জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন আপনারা আল্লাহরওয়াস্তে সীমিত আকারে মসজিদে আসেন। অন্তত আমাদের প্রিয় নবীজি মোহাম্মদ রাসূলূল্লাহ সা. এর কথাও যদি না শুনেন তাহলে আর আমাদের বাঁচাবে কে? এই রকম একটা মহামারীর সময় আপনারা কয়েক লক্ষ মানুষ একত্রিত হলেন নাসিরনগরে।

সরকার এতো কষ্ট করে লকডাউন বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করছে। দিন দিন আনে দিন খায় এমন মানুষগুলোও ঘরে বসে আছে। ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার পাশে আমাদের হবিগঞ্জ জেলা, সিলেট বিভাগ, আরেকপাশে চিটাগাং বিভাগ। এই পুরো এলাকাটাকে আপনারা অরক্ষিত বানিয়ে দিলেন।

তিনি আরো বলেন, এখন করোনার কাছে স্যারেন্ডার করা ছাড়া উপায় নাই। করোনা তো সব জায়গা দখল করে নিবে। সরকার আর কী করতে পারে? কয়েক লাখ মানুষ যখন একত্রিত হয় তখন পুলিশ কী করতে পারে? পুলিশের বাপেরও কিছু করার ক্ষমতা নাই।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, এই লাইভে একটু অনুরোধ করবো- আর কখনো এমন করবেন না। আমি আমার এলাকার মানুষকে বলে দিচ্ছি- আমার মৃত্যু হলেও দু’চারজনে জানাজা দিয়ে বিদায় করে দিবেন। কারণ আমি মারা গেলে আমি আর কাউকে মহামারী ভাইরাসে আক্রান্ত করতে পারি না।

ফেসবুকে লাইক দিন