প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যে তওবা করেছিলেন ড. কামাল

ইমান২৪.কম: ১৯৮৫ সালে প্রলয়ংকারী জলোচ্ছ্বাসের পর ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনার স্মৃতির কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ভোরবেলা পান্তা ভাত, নারকেল কোড়া আর শুকনা মরিচ দিয়ে খেয়ে সারাদিন ত্রাণ বিতরণের কাজ করতাম। তখন কামাল হোসেন সাহেব আমাদের সঙ্গে ছিলেন, উনি তখন তওবা কাটছিলেন আমার সঙ্গে আর বের হবেন না বলে।

বুধবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে উপকূলীয় জেলা সন্দ্বীপে কয়েকটি উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সেখানে উপস্থিত স্থানীয় মানুষদের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি এসব বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমি কিন্তু সন্দ্বীপ বহুবার গেছি। ৯১ সালে ঘুর্ণিঝড় তখন আমি গেলাম, ১৯৮৫ সালে গেলাম। সে সময় ঘুর্ণিঝড়ে খুব ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। সারা সন্দ্বীপ একেবারে জলোচ্ছ্বাসে ভেসে গেছে। কিচ্ছু পাওয়া যেত না।

ভোরবেলা পান্তা ভাত, নারকেল কোড়া আর শুকনা মরিচ দিয়ে খেয়ে সারাদিন আমরা রিলিফের ওয়ার্ক করতাম। আমার এই রেসিপিটা সবাই মনে রাখেন এটা কিন্তু খেতে ভাল লাগে। পান্তা ভাত নারকেল কোড়া আর শুকনা মরিচ পোঁড়া, খুব মজা খেতে।

প্রধানমন্ত্রী তখনকার কথা বলে বলেন, তখন কিছুই পাওয়া যেত না। লবনাক্ত পানিতে সব শেষ। কিচ্ছু নাই। পুকুরের পানি লবণ। খুবই কষ্ট ছিল। আমরা সকালে বের হতাম, ওই পান্তা ভাত খেয়ে বের হতাম, কামাল হোসেন সাহেব আমাদের সঙ্গে ছিল তখন। উনি তওবা কাটছিলেন যে, আমার সঙ্গে বের হবে না।

>>এখন বিজ্ঞাপন দিয়েও কাজের মানুষ পাওয়া যায় না: সমাজকল্যাণমন্ত্রী

সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেন, আগে দরিদ্র মানুষ বাড়িতে কাজের জন্য বসে থাকতো, এখন বাসায় কাজ করার জন্য বিজ্ঞাপন দিয়েও মানুষ পাওয়া যায় না।

আজ বুধবার সকালে রাজধানীর ইস্কাটনে জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদে ‘জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদের ৪৪তম পরিষদ সভায়’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

সমাজকল্যাণমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের গত ১০ বছরের বিস্ময়কর উন্নয়ন দেখে এক সময়ের তলাবিহীন ঝুড়ি বলা দেশগুলো এখন কথা বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছে।

ক্ষুধা বা দারিদ্র্যের কারণে দেশের কোথাও একটি মানুষও মারা যায়নি। আগে দরিদ্র মানুষেরা মানুষের বাড়িতে কাজের জন্য বসে থাকতো, এখন বাসায় কাজ করার জন্য বিজ্ঞাপন দিয়েও মানুষ পাওয়া যায় না।’

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির মাধ্যমে প্রতিটি পিছিয়ে থাকা মানুষকে সমাজের মূল স্রোতধারায় নিয়ে আসতে হবে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন:  কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিল ঐক্যফ্রন্ট

‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বৃদ্ধির পেছনে ধর্মহীন শিক্ষা ও অশ্লীল সংস্কৃতি দায়ী’

গত এক মাসে ৫২ টি ধর্ষণ, ২২টি গণধর্ষণ এবং ৫টি ধর্ষণের পর হত্যা

৩৩ বছর ধরে এমপিওভুক্ত, ১৪জন শিক্ষক থাকলেও নেই কোনো ছাত্র

ইজতেমা মাঠের কাজ শুরু, দ্বিধাদ্বন্দ্ব ভুলে ময়দানে শরিক হওয়ার আহ্বান মুরব্বিদের

এখন থেকেপুলিশের বিরুদ্ধেও অভিযোগ করা যাবে সরাসরি, খোলা হয়েছে কমপ্লেইন সেল

ফেসবুকে লাইক দিন