পুরো দেশ কাঁদছিল, আর মোদী তখন শুটিং করছিলেন!

ইমান২৪.কম: ‘রোম যখন পুড়ছিল, নিরো তখন বেহালা বাজাচ্ছিলেন’। এই প্রবাদবাক্য ধরে রাজনীতির ময়দানে প্রতিপক্ষকে আক্রমণের নজির কম নেই। এবার সেই অভিযোগেই বিদ্ধ হলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পুলওয়ামায় জঙ্গি হানার পর সারাদেশ যখন সিআরপিএফ জওয়ানদের মৃত্যুতে কাঁদছে, প্রধানমন্ত্রী তখন শুটিং করছিলেন’, প্রমাণসহ এই অভিযোগ তুলে তীব্র আক্রমণ শানাল কংগ্রেস।

রীতিমতো তোপ দেগে দলের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালার প্রশ্ন, ‘সারা বিশ্বে এরকম প্রধানমন্ত্রী আর কোনও দেশে আছেন?’ তবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে লজ্জাজনক অভিযোগ এনেছে কংগ্রেস’।

একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের জন্য সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী একটি প্রচারমূলক তথ্যচিত্রের শুটিং করছেন। ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামা হামলার দিনও প্রায় দিনভর সেই তথ্যচিত্রের শুটিং হয়েছে উত্তরাখণ্ডের জিম করবেট ন্যাশন্যাল পার্কে। পুলওয়ামা হামলা হয় দুপুর তিনটে নাগাদ। কংগ্রেসের অভিযোগ, সেই খবর পাওয়ার পরও সন্ধ্যা পর্যন্ত শুটিংয়েই ব্যস্ত ছিলেন মোদী।

আগে থেকে শুটিংয়ের দিনক্ষণ নির্ধারিত থাকতেই পারে। কিন্তু এত বড় জঙ্গি হামলার পরে প্রধানমন্ত্রী কী করে শুটিং করেন, তাই নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে কংগ্রেস। সুরজেওয়ালার অভিযোগ, ক্ষমতার লোভে মোদী দেশের প্রধানমন্ত্রীর মতো দায়িত্ব পালন করছেন না। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার

স্থানীয় একাধিক সংবাদপত্রে মোদীর প্রতি মিনিটের কার্যক্রম ছাপিয়েছে বলে উল্লেখ করে সেই সংবাদপত্র সাংবাদিকদের দেখান সুরজেওয়ালা। এ নিয়ে মোদীকে সুরজেওয়ালার খোঁচা, ‘নিজেকে জাহির করতে তথ্যচিত্রের শুটিং করছিলেন, করবেট পার্কে কুমিরদের মধ্যে সময় কাটাচ্ছিলেন মোদী। একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের চিত্রগ্রাহকদের সঙ্গে চা-সিঙ্গারা খাচ্ছিলেন।

সুরজেওয়ালার অভিযোগের জবাব দিতে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। তিনি বলেন, ‘এরকম একটা স্পর্শকাতর বিষয় নিয়েও নির্লজ্জ রাজনীতি করছে কংগ্রেস। প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে লজ্জাজনক অভিযোগ তুলেছে। চেষ্টা করছে সেনাদের মনোবল ভেঙে দেওয়ার।’

পাকিস্তানে হামলা হবে মোদির জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল: পারভেজ মুশারফ

পাকিস্তানে হামলা হবে মোদির জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল: পারভেজ মুশারফ

ইমান২৪.কম: পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট জেনারেল পারভেজ মুশারফ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যদি ভারতীয় সেনাদের পাকিস্তানে হামলা চালানোর নির্দেশ দেন, তবে এটাই হবে তার জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল।

ভারতীয় এক বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে দুবাই থেকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা জানিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট।

কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সম্প্রতি ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় ৪৪ জন সিআরপিএফ জওয়ান নিহত হওয়াকে কেন্দ্র করে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে তীব্র উত্তেজনার প্রেক্ষিতে বুধবার জেনারেল মুশারফ ওই মন্তব্য করেন। ওই হামলার পাকিস্তান সরকারকে দায়ী করছে ভারত।

‘আজতক’ওয়েবসাইট সূত্রে প্রকাশ, পুলওয়ামার ঘটনার পরে ভারতের পক্ষ থেকে পাকিস্তানের জন্য কূটনৈতিক পদক্ষেপ নেয়া প্রসঙ্গে জেনারেল মুশারফ বলেন, এতে কিছুই হবে না। পাকিস্তানের অর্থনীতি সঠিক পথে চলেছে এবং যদি তাদের কালো তালিকাভুক্ত করা হয় তাহলে তারা মরে যাবে না।

মুশাররফ বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যদি পাকিস্তানকে আক্রমণ করেন, তবে এটা তার জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল হবে। মুশাররফের দাবি, পুলওয়ামার হামলায় সিআরপিএফ কর্মীদের হত্যা বা কাশ্মীরিদের জন্য নরেন্দ্র মোদির কোনো প্রকৃত আবেগ নেই।

মুশাররফ বলেন, ‘মোদির হৃদয়ে এসব লোকের জন্য আগুন নেই। যদি থাকত তাহলে তিনি আগে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করতেন।’

পুলওয়ামায় হামলার পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিহারে এক জনসভায় দেয়া ভাষণে ওই ঘটনার উল্লেখ করে বলেছিলেন, ‘আপনাদের হৃদয়ে যে আগুন জ্বলছে, আমার হৃদয়েও সেই আগুনই জ্বলছে।’

কিন্তু জেনারেল মুশারফের মতে, প্রধানমন্ত্রী মোদির অন্তরে কোনো আগুন নেই, এর চেয়েও বেশি মুশারফের হৃদয়ে যখন কাশ্মীরিরা মারা যায়, বুলেট বিদ্ধ হয়। কাশ্মীরে সমস্যার সমাধান না হলে এসব হামলা বন্ধ হবে না বলেও জানিয়েছেন জেনারেল মুশাররফ।

জেনারেল মুশারফ বলেন, ‘আমি ৪০ বছর ধরে সেনাবাহিনীতে ছিলাম এবং পুলওয়ামাতে নিহত সেনাদের প্রতি আমার আন্তরিক সহানুভূতি রয়েছে। তাদের পরিবারের জন্য আমার সম্পূর্ণ সহানুভূতি আছে। আর যুদ্ধের পরিণতি কী হয় তা আমি জানি।’

আরও পড়ুন:  পাক-ভারত সীমান্তে গোলাগুলি : মর্টার শেল ও ভারী গোলাবর্ষণ

চুপ করে বসে থাকবো না, পাল্টা হামলা চালাব: ইমরান খান

হামলার জবাব দিতে কতটুকু প্রস্তুত ভারতের সেনাবাহিনী?

ভারত-পাকিস্তান সিমান্ত রণসাজে সজ্জিত, ৬০০ ট্যাংক পাঠালো পাকিস্তান

আবারও ব্যাপক সংঘর্ষ কাশ্মীরে, ভারতীয় বাহিনীর মেজর-সহ নিহত ৫

জাপানি নারীর ইসলাম গ্রহণের হৃদয়বিধারক ঘটনা ও পর্দার প্রতি সন্মান

ফেসবুকে লাইক দিন