পুরো কুরআন হাতে লিখে রেকর্ড গড়লেন বরিশালের হুমায়ুন কবির সুমন

ইমান২৪.কম: মাদ্রাসায় পড়েননি এসএসসি পাশ করছেন সেই ১৯৯৯ সালে। আরবী শিখার উদ্দেশ্যে আরবী হাতের লেখা শিখেন তখনই। বলছিলাম বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার হুমায়ুন কবির সুমনের কথা।

তিনি পুরো কুরআন হাতে লিখেছেন। এই কাজটি করতে তিনি সময় নিয়েছেন ৩বছর। তিনি জানান, ২০০৭ সালে পবিত্র কুরআন হাতে লেখা শুরু করেন। ৩ বছরের ব্যবধানে ২০১০ সালে পুরো কুরআন লেখা সম্পন্ন করেন।

নিজ ইচ্ছায় আরবি লেখা শিখে কুরআন লেখা এবং পৃষ্ঠা বিন্যাস ও সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে ক্যালিওগ্রাফিও ব্যবহার করেছেন তিনি। বরিশালের তরুণ প্রতিভা হুমায়ন বিশ্বের সবচেয়ে বড় হাতে লেখা কুরআনে পাণ্ডুলিপি তৈরি করতে চান তিনি।

হুমায়ুন কবির সুমন বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার বারড়িয়া গ্রামের মো. রজব আলী শিকদারের ছেলে। তিনি বর্তমানে ঢাকার গাউছিয়া মার্কেটের একটি শোরুমের সহকারী ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

আরো পড়ুন>> হজরত মুসা আলাইহিস সালামের সময় জালিম শাসক ফেরাউনের স্ত্রী বিবি আসিয়া আল্লাহর ওপর ঈমান আনেন। ফেরাউন নিজ স্ত্রীর ঈমান আনার খবর শুনে চরম রাগান্বিত হন। এক পর্যায়ে ফেরাউন তার স্ত্রীকে চরম শাস্তি মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশ দেন। সে সময় সাহায্য চেয়ে ফেরাউনের স্ত্রী আল্লাহর কাছে দোয়া করেন।

মৃত্যুর আগে বিবি আসিয়ার আহ্বান মহান আল্লাহর কাছে এত অধিক পছন্দনীয় হয়ে যায়, যা তিনি মুসলিম উম্মাহর জন্য দোয়াস্বরূপ এবং ইসলামের সত্যয়নকারী হিসেবে এ আয়াত তুলে ধরেন-

رَبِّ ابْنِ لِي عِندَكَ بَيْتًا فِي الْجَنَّةِ وَنَجِّنِي مِن فِرْعَوْنَ وَعَمَلِهِ وَنَجِّنِي مِنَ الْقَوْمِ الظَّالِمِينَ

উচ্চারণ : রাব্বিবনি লি ইংদাকা বাইতান ফিল জান্নাতি ওয়া নাঝ্ঝিনি মিন ফিরআউনা ওয়া আমালিহি ওয়া নাঝ্ঝিনি মিনাল ক্বাওমিজ জালিমিন।’ (সুরা তাহরিম : আয়াত ১১)

অর্থ : ‘হে আমার পালনকর্তা! আপনার কাছে জান্নাতে আমার জন্য একটি ঘর তৈরি করুন। আমাকে ফেরাউন ও তার দুষ্কর্ম থেকে উদ্ধার করুন এবং আমাকে জালেম সম্প্রদায় থেকে মুক্তি দিন।’

সুতরাং নির্যাতনের শিকার নারী ও মাজলুমদের জন্য এ প্রার্থনা আল্লাহর পক্ষ থেকে পুরস্কার স্বরূপ। আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে চরম অত্যাচার-নির্যাতন ভোগ করার সময় এ দোয়ার মাধ্যমে তার কাছে আশ্রয় লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।

ফেসবুকে লাইক দিন