নারীবাদ, সমকামিতা ও নাস্তিকতার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিল সউদী প্রশাসন

ইমান টোয়েন্টিফোর ডটকম : গত বছর মহিলাদের গাড়ি চালানোর উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে দিয়েছিল সউদী আরব। কিন্তু, কথিত এ উদারতা দেখালেও নারীবাদী চিন্তা ভাবনা, সমকামিতা এবং নাস্তিকতার বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিল দেশটি। এগুলোকে ‘চরমপন্থী ভাবনা’ হিসাবে তালিকাভুক্ত করেছে সউদী প্রশাসন।

সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে সউদীর কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর টুইটার অ্যাকাউন্টে। তাতে নারীবাদী চিন্তাভাবনা, সমকামিতা এবং নাস্তিকতার বিষয় উল্লেখ করে বলা হয়েছে, ‘এমন চরমপন্থা এবং বিকৃত মনস্কতা মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়।’ নারীবাদ, সমকামিতা এবং নিরীশ্বরবাদের মতো ধারণাগুলিকে ‘তাকফির’ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে ওই ভিডিওতে। যার অর্থ ওই সব ধারণা ধর্মের পরিপন্থী। একই সঙ্গে নাগরিকদের সতর্ক করে ভিডিওতে বলা হয়েছে, ‘ভুলে যাবেন না, দেশের বিনিময়ে কোনও কিছু অতিরিক্ত করলে তাকে চরমপন্থা হিসাবেই গণ্য করা হবে।’

সামাজিক বিধি নিষেধ তোলা ও নারী স্বাধীনতার ক্ষেত্রে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছেন সউদীর ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। সরকার থেকে দেয়া হচ্ছে টুরিস্ট ভিসা। নারীদের বাধ্যতামূলকভাবে অভিভাবক থাকার মতো নিয়মও বাতিল করা হয়েছে। যদিও কয়েক সপ্তাহ আগেই নারীদের অধিকারের দাবিতে সোচ্চার বেশ কয়েকজনে আটক করা হয়েছে। সউদী রাজতন্ত্রের নিয়ম অনুযায়ী, জনসমক্ষে প্রতিবাদ জানানো এবং রাজনৈতিক কার্যকলাপও নিষিদ্ধ।

সউদী আইন অনুযায়ী, সমকামিতা ও নাস্তিকতা বেআইনি। অভিযোগ প্রমাণ হলে মৃত্যুদণ্ড পর্যন্ত দেয়া হতে পারে। ইতিমধ্যেই কিছু সংগঠনকে ‘চরমপন্থী’ তালিকাভুক্তও করা হয়েছে।

এস এম / ইমান টোয়েন্টিফোর ডটকম

ফেসবুকে লাইক দিন