নামাজেই ২০০০ বার কুরআন খতম!!! -শায়েখ উসামার কুরআনপ্রেম

ইমান২৪.কম: বস্তুবাদী এই পৃথিবীর বুকে এক আসমানি তারকা শায়েখ উসামা আবদুল আযীম। আল আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক এন্ড এরাবিক স্টাডিজ অনুষদের প্রফেসর। এছারা উনি ইসলামি শরিয়া বিভাগের প্রধান এবং শাফেয়ী মাযহাবের একজন সনামধন্য আলেম।

> উনার প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়ের বাইরে এক‌টি বড় পরিচয় হলো কুরআনের নিভৃত সাধক। ছোট বেলা থেকে কুরআনের প্রতি যে ভালোবাসা, বৃদ্ধ বয়সেও তাতে একটুও ঘাটতি নেই।

কুরআনের প্রতি এই ভালোবাসা থেকেই তিনি এক অভিনব পদ্ধতি অবলম্বন করেন- ‘ফরজ নামাজে প্রতি ৩ দিনে এক খতম কুরআন পড়া’!!

অবিশ্বাস্য মনে হলেও, প্রায় ১৫ বছর ধরে তিনি এভাবেই নামায পড়ে আসছেন। প্রতিদিন মাগরিব, এশা আর ফজরে মোট ১০ পারা তেলাওয়াত করেন। এভাবেই উনার ধারাবাহিক খতম চলে আসছে।

রমজান মাসেও চলে উনার এই ধারাবাহিক খতম। এছারা তারাবিতেও প্রতি সপ্তাহে এক খতম দেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপনা, সংসার ব্যস্ততা ও বয়সের দূর্বলতা স্বত্ত্বেও তার এই গতি কখনো থামেনি। কি অসীম অদম্য স্পৃহা, ভাবতেই যা অসম্ভব মনে হয়!

যে মসজিদে তিনি ইমামতি করেন তার চিত্র অন্য কোথাও মেলা ভার। কায়রোর বাসাতিন এলাকার সে মসজিদে কুরআনপ্রেমী মুসুল্লীদের ব্যাপক অংশগ্রহণ থাকে প্রতি ওয়াক্তেই। ঘন্টাব্যাপী দীর্ঘ নামাজেও বিরক্তি দেখা যায়না কারো মাঝে।

আজ সেই ধারাবাহিকতায় শেষ হচ্ছে ২০০০ তম খতম!!

ইতোমধ্যেই এই খতমে অংশ নেয়ার জন্য দূরদূরান্ত থেকে হজরতের মুহিব্বীনদের আগমন শুরু হয়েছে।

আল্লাহ তা’আলা তার এই প্রিয় বান্দার কুরআন প্রেমকে কবুল করুন। আমাদেরকে তার পদাংক অনুসরণের তাওফীক দান করুন।

মুহাম্মদ লতফেরাব্বি
শিক্ষার্থী, আল আযহার বিশ্ববিদ্যালয়।

আরও পড়ুনঃ তুরস্কের সব স্কুলে মসজিদ নির্মাণ বাধ্যতামূলক এরদোগানের

ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে মসজিদ বন্ধ ঘোষণা করলো প্রশাসন !

এবার গৃহহীনদের জন্য ৫০ লাখ বাড়ি বানাচ্ছেন ইমরান খান

ফেসবুকে লাইক দিন