প্রধানমন্ত্রীর অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে : মাওলানা তৈয়ব

ইমান২৪.কম: জাতীয় সংসদে আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমীয়া বাংলাদেশের অধীনে মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থার সর্বোচ্চ স্তর দাওরায়ে হাদীসকে মার্স্টাস (ইসলামিক স্টাডিজ ও আরবি) ডিগ্রির সমমানের স্বীকৃতি আইন পাস করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন দক্ষিণ চট্টলার বৃহত্তম শিক্ষা কেন্দ্র জামিয়া ইসলামিয়া জিরির প্রধান পরিচালক মাওলানা শাহ মোহাম্মাদ তৈয়ব ।

মাওলানা শাহ মোহাম্মদ তৈয়ব আল্লাহ তায়ালার দরবারে শোকরিয়া আদায় করে আজ এক বিবৃতিতে বলেন, ব্রিটিশ উপনিবেশকালে মুসলমানদের থেকে রাজত্ব ও শিক্ষা কেড়ে নেয়ার প্রেক্ষাপটে মুসলমানদের ঈমান-আকিদা ও তাহযীব-তামাদ্দুন রক্ষা এবং উপমহাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামকে বেগবান করার লক্ষ্যে দারুল উলুম দেওবন্দ ও তার চিন্তাধারায় কওমী মাদরাসাসমূহ প্রতিষ্ঠা লাভ করে।

কিন্তু স্বাধীনতার দীর্ঘ সময় পার হলেও বাংলাদেশে কওমী মাদরাসার লাখ লাখ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা স্বীকৃতি থেকে বঞ্চিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঐতিহ্যবাহী এই শিক্ষাব্যবস্থার স্বীকৃতি দিয়ে একটি ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালন করেছেন। মাওলানা শাহ তৈয়ব আরো বলেন, কওমী মাদরাসা শিক্ষা ব্যবস্থার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি দেশের লাখ লাখ আলেম ও ছাত্রসমাজের দাবি ছিল।

দীর্ঘ প্রতীক্ষা ও অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে নিজস্ব ঐতিহ্য ও স্বকীয়তা বজায় রেখে কওমী মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থার স্বীকৃতি বিষয়ক বিল সংসদে অনুমোদেনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে আন্তরিকতা দেখিয়েছেন সেজন্য আমরা জামিয়া জিরির পক্ষ থেকে তাঁর প্রতি অভিনন্দন ও শোকরিয়া জ্ঞাপন করছি। আমরা মনে করি, প্রধানমন্ত্রীর এই অবদান কওমী মাদরাসার ইতিহাসে একটি স্মরণীয় ঘটনা হয়ে থাকবে।

আরও সংবাদ: ভারতকে পাকিস্তানের কঠোর হুঁশিয়ারি

ভারতীয় বিএসএফ বাংলাদেশে ঢুকে গুলি চালিয়েছে: বাড়িঘরে হামলা, গুলিবিদ্ধ ৪

ফেসবুকে লাইক দিন